শেরপুরের নাকুগাঁও স্থলবন্দর পরিদর্শন করলেন বাণিজ্য সচিব

শেরপুরের নাকুগাঁও স্থলবন্দর পরিদর্শন করলেন বাণিজ্য সচিব
সর্বমোট পঠিত : 130 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ এজন্য স্থানীয় ব্যবসায়ী, বেসরকারী উদ্যোক্তা ও সিএন্ডএফ এজেন্টদের এগিয়ে আসার আহবান জানান। পরে তিনি নাকুগাঁও স্থলবন্দরের অদুরে মহান মুক্তিযুদ্ধের বধ্যভূমি ও প্রস্তাবিত বর্ডার হাটের স্থান পরিদর্শন করেন।

শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার নাকুগাঁও স্থলবন্দর পরিদর্শন করেছেন বাণিজ্য মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (১৪ জুলাই) সকালে নাকুগাঁও স্থলবন্দরের সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে আমদানী রফতানীকারক ব্যবসায়ীদের সাথে সভা কক্ষে এক মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়।

শেরপুরের জেলা প্রশাসক সাহেলা আক্তারের সভাপতিত্বে এতে উপস্থিত ছিলেন নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম, ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান, বন্দর কর্তৃপক্ষের এডি পার্থ ঘোষ, প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুল মান্নান সোহেল, সাবেক সভাপতি এমএ হাকাম হীরা, সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম মনির, সাবেক সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব দে কেটু, আমদানী রফতানীকারক সমিতির সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজুর রহমান মুকুল, সাধারণ সম্পাদক অরুন চন্দ্র সরকার ও স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।

এসময় ব্যবসায়ীরা বলেন, জেলার অপার সম্ভাবনাময় একমাত্র নাকুগাঁও স্থলবন্দর দিয়ে ২০টি পণ্য আমদানী করার অনুমতি থাকলেও বর্তমানে শুধুমাত্র পাথর আমদানী করা হচ্ছে। এছাড়া মাঝে মধ্যে কয়লা আমদানী করা হয়। আর বাংলাদেশ থেকে কোন প্রকার পণ্য রফতানী করা হচ্ছে না। ব্যবসা বাণিজ্য প্রসারে ব্যবসায়ীদের দাবী এই বন্দর দিয়ে ভারত থেকে শুটকী মাছ ও সুপারী আমদানী করলে ব্যবসায়ীরা লাভবান হবেন। এমনকি স্থানীয় বাজারে এসব পণ্যের চাহিদা মিটবে।

বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ এজন্য স্থানীয় ব্যবসায়ী, বেসরকারী উদ্যোক্তা ও সিএন্ডএফ এজেন্টদের এগিয়ে আসার আহবান জানান। পরে তিনি নাকুগাঁও স্থলবন্দরের অদুরে মহান মুক্তিযুদ্ধের বধ্যভূমি ও প্রস্তাবিত বর্ডার হাটের স্থান পরিদর্শন করেন।


মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি