বগুড়ায় হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির পাশে জাহানারা খালেক ফাউন্ডেশন

সর্বমোট পঠিত : 27 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

এদিকে সুদূর আমেরিকা থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে ফাউন্ডেশনের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা এহসান তাকবীন বলেন, আমার মায়ের নামে এই সেবামূলক ফাউন্ডেশন শুরু করলেও আমার কাছে পৃথিবীর সব মা সমান। সন্তান হিসেবে আমার মায়ের নামে গড়া এই ক্ষেত্র থেকে থাকতে চাই সেই সকল মায়েদের পাশে। আর এটি সম্ভব হচ্ছে সকলের আন্তরিক সহযোগিতার জন্যে।


বগুড়ায় ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সরকারি মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতিতে আর্থিক সহযোগিতা নিয়ে পাশে দাঁড়িয়েছে জাহানারা খালেক ফাউন্ডেশন যা অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে আমেরিকা প্রবাসী সন্তানদের মা জাহানারার নামে প্রতিষ্ঠিত ফাউন্ডেশনটি।

রবিবার রাতে বগুড়া শহরের পর্যটন মোটেলের কনফারেন্স রুমে জাহানারা খালেক ফাউন্ডেশন এর বার্ষিক আলোচনা সভায় আর্থিক সহযোগিতার প্রথম চেক সরকারি মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা: কাজী মিজানুর রহমান ও আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা: শফিক আমিন কাজলের হাতে তুলে দেন ফাউন্ডেশনের সংশ্লিষ্টরা।

সভা ও চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বগুড়া জেলা সিভিল সার্জন ডা: মোহাম্মদ শফিউল আজম। এসময় তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মানুষের দোরগোঁড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিয়েছেন। দূর দূরান্ত থেকে প্রতিদিন হাজারো মানুষ এখন সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসেন। বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা পেলেও এদের মাঝে অনেকেরই আবার চিকিৎসা বাবদ অন্যান্য আনুষঙ্গিক খরচের সামর্থ্যটুকুও থাকে না তাদের সহায়তা করা হয় হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির মাধ্যমে। আর এই খাতে সন্তান হিসেবে নিজের মায়ের নামে গড়া জাহানারা খালেক ফাউন্ডেশন যেভাবে সহায়তা নিয়ে এগিয়ে এসেছে বা ধারাবাহিক সহযোগিতা প্রদানে তারা ইচ্ছা পোষণ করেছে তা সত্যি প্রশংসনীয়। তবে প্রথমে তাদের ফাউন্ডেশনের সরকারি নিবন্ধন নিয়ে প্রক্রিয়া অনুযায়ী অগ্রসর হতে হবে। ভাল কাজে স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষে তিনি সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

এদিকে সুদূর আমেরিকা থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে ফাউন্ডেশনের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা এহসান তাকবীন বলেন, আমার মায়ের নামে এই সেবামূলক ফাউন্ডেশন শুরু করলেও আমার কাছে পৃথিবীর সব মা সমান। সন্তান হিসেবে আমার মায়ের নামে গড়া এই ক্ষেত্র থেকে থাকতে চাই সেই সকল মায়েদের পাশে। আর এটি সম্ভব হচ্ছে সকলের আন্তরিক সহযোগিতার জন্যে।

ফাউন্ডেশনের সভাপতি সৈয়দ তারিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ জাফির আলমের সঞ্চালনায় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে রাখেন সমাজসেবা অধিদপ্তর বগুড়া জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক আবু সাঈদ মো: কাউছার রহমান ও সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: সামির হোসেন মিশু।

এসময় অন্যান্যদের মাঝে আরও উপস্থিত ছিলেন ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির সহ-সভাপতি কামরুল আলম রিপু, গাইনী বিশেষজ্ঞ ডা: শারমিন হোসেন মমি, ফাউন্ডেশন এর প্রতিষ্ঠাতাগণ যথাক্রমে নাজনীন হাসান, নাসরিন আকন্দ ও নওশীন রহমান প্রমুখ।

সরকারি নিবন্ধনের প্রক্রিয়ায় থাকা গত ২ বছর থেকে কাজ শুরু করা ফাউন্ডেশনটি সরকারি হাসপাতালে ধারাবাহিক আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করলে রোগী কল্যাণ সমিতির মাধ্যমে এর সুবিধা পাবে তৃণমূলের শতশত দরিদ্র রোগী যা ইতিবাচক পরিবর্তনের শুভ সূচনা হিসেবেই দেখছেন সংশ্লিষ্টরা। বার্ষিক এই সভার সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন জাহানারা খালেক ফাউন্ডেশন এর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা: শফিক আমিন কাজল।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি