হংকং’র মঞ্চে দেশাত্মবোধক গানের নাচে বাংলাদেশের পতাকা

সর্বমোট পঠিত : 230 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

’হংকং ফ্লাওয়ার শো-২০২৩’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানসহ ১০দিন ব্যাপী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ অংশগ্রহণ করেছে। হংকং’র কোন সাংস্কৃতিক মঞ্চে দেশাত্মবোধক গানের নাচে বাংলাদেশের পতাকা ব্যবহার করা হয়েছে। এর আগে হংকং ফ্লাওয়ার শো নামক কোন অনুষ্ঠানে দেশাত্মবোধক গানের নাচে বাংলাদেশের পতাকা ব্যবহার করা হয়নি। বাংলাদেশ কনস্যুলেট হংকং-এর এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।


’হংকং ফ্লাওয়ার শো-২০২৩’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানসহ ১০দিন ব্যাপী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ অংশগ্রহণ করেছে। হংকং’র কোন সাংস্কৃতিক মঞ্চে দেশাত্মবোধক গানের নাচে বাংলাদেশের পতাকা ব্যবহার করা হয়েছে। এর আগে হংকং ফ্লাওয়ার শো নামক কোন অনুষ্ঠানে দেশাত্মবোধক গানের নাচে বাংলাদেশের পতাকা ব্যবহার করা হয়নি। বাংলাদেশ কনস্যুলেট হংকং-এর এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয় যে, ১০ মার্চ থেকে ১৯ মার্চ পর্যন্ত অনুষ্ঠিতব্য দশদিন ব্যাপী হংকং ফ্লাওয়ার শো-২০২৩ এ হংকংস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল অংশ গ্রহণ করেছে। ‘হাইড্রেনজা ফুল’-কে থিম করে হংকং লেইজার ও কালচারাল সার্ভিসেস ডিপার্টমেন্ট কর্তৃক আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে দেশ বিদেশের অসংখ্য ফুল, গাছের সমারোহ রয়েছে।

এই উপলক্ষ্যে ১০ মার্চ অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল মিজ ইসরাত আরা অংশ গ্রহন করেন। হংকং লেজিসোলেটিভ কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট এনড্রিয় লেয়াং কিন ইউয়েন, জিবিএম, জিবিএস, জেপি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

ফুলের প্রদর্শনের পাশাপাশি এ উপলেক্ষ্য চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, ফটোগ্রাফি প্রতিযোগিতা, দেশাত্মবোধক গান ও নাচসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে; যেখানে আজ বাংলাদেশ প্রথম বারের মত অংশ গ্রহন করে। বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেলের উদ্যোগে অন্তত ২জন বাংলাদেশী এতে অংশ গ্রহণ করেন। হংকং পলিটেকনিক বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষের অধ্যয়নরত বাংলাদেশী শিক্ষার্থী মিজ শ্রেয়া বিশ্বাস এবং হংকং এ কর্মরত নারী কর্মী মিজ কানিজ ফেরদৌস মীম বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা নিয়ে ক্লাসিক্যালসহ বাংলাদেশর ফোক নিত্য পরিবেশ করেন। যা উপস্থিত দর্শকদের মুগ্ধ করে।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের শুরুতে হংকং ফ্লাওয়ার শো’র চেয়ারম্যান মিজ টিনা এঁর পক্ষ থেকে কনসাল জেনারেল মিজ ইসরাত আরা-কে বাংলাদেশের অংশ গ্রহনের জন্য শুভেচ্ছা স্মারক প্রদান করা হয়। কনসাল জেনারেল-এর পক্ষে শুভেচ্ছা স্মারকটি গ্রহন করেন কনসাল জাহিদুর রহমান। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের অংশ গ্রহনের জন্য হংকং লেইজার ও কালচারাল সার্ভিসেস ডিপার্টমেন্ট কর্তৃক বাংলাদেশ কনস্যুলেট এর প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞাতা জ্ঞাপন করা হয়।

উল্লেখ্য, এই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ছাড়াও ফিলিপাইন, ইন্দোনেশিয়া ও হাওয়াই এর শিল্গীগন নৃত্য পরিবেশন করেন।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি