ময়মনসিংহ জেলার ১০টি পৌরসভার উন্নয়নে এক হাজার কোটি টাকার প্রকল্প নেয়া হচ্ছে -সংস্কৃতি প্রতিমস্ত্রী

সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে. এম খালিদ বাবু এমপি
সর্বমোট পঠিত : 45 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

১০টি পৌরসভার মেয়র ও প্রকৌশলীগণস্ব-স্ব এলাকায় কি কি উন্নয়ন প্রয়োজন, তা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে তালিকা প্রণয়ন করে আগামী ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে জমা দেয়া সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এসব পৌরসভার সকল প্রকল্প একসাথে করে একটি বৃহৎ প্রকল্প আকারে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে। এরপর তা পরিকল্পণা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে একনেকে পাসের প্রয়াস চালানো হবে বলে সূত্র জানায়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ময়মনসিংহের সার্বিক উন্নয়নে অত্যন্ত আন্তরিক। এর ধারাবাহিকতায় ময়মনসিংহ জেলার ১০টি পৌরসভার প্রয়োজনীয় উন্নয়নের মাধ্যমে নাগরিকদের জীবনমান আরো উন্নয়নে নানা পরিকল্পণা গ্রহন করছেন। আগামী ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে প্রত্যেক পৌরসভা হতে একশত কোটি টাকা করে মোট এক হাজার কোটি টাকার প্রকল্প প্রণয়ন করার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে. এম খালিদ বাবু এমপি।

মঙ্গলবার (৩১ আগষ্ট) বিকেলে নগরীর এলজিইডিহলরুমে অনুষ্ঠিত পৌসভার উন্নয়নমূলক কাজ সম্পর্কিত ডিপিপি প্রনয়ন বিষয়ে১০টি পৌরসভার মেয়র ও প্রকৌশলীদের সাথে এক মতবিনিয় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) ময়মনসিংহের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শহীদুজ্জমান খানের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন ময়মনসিংহ সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী জিএম আজাদ, ত্রিশাল পৌরসভার মেয়র এবিএম আনিছুজ্জামান আনিছ, ঈশ^রগঞ্জের মেয়র মোঃ আব্দুর সাত্তার, গৌরীপুরের মেয়র মোঃ শফিকুল ইসলাম, মুক্তাগাছা পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ মোখলেছুর রহমান, হালুয়াঘাটের সচিব আব্দুল ওয়াদুদ প্রমূখ।

 সূত্র জানায়, স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী তাজুল ইসলাম এমপির আহবানে জেলার ১০টি পৌরসভার প্রয়োজনীয় উন্নয়নের লক্ষ্যে একটি বৃহৎ প্রকল্প প্রণয়নের লক্ষ্যেএই সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর ময়মনসিংহের নির্বাহী প্রকৌশল অফিস এর সমন্বয় করছেন। মুক্তাগাছা, ফুলবাড়ীয়া, ত্রিশাল, ভালুকা, গফরগাঁও, নান্দাইল, ঈশ^রগঞ্জ, গৌরীপুর, ফুলপুর ও হালুয়াঘাটসহ জেলার ১০টি পৌরসভার উন্নয়নে এই মতবিনিময় সভায় অনুষ্ঠিত হয়।

১০টি পৌরসভার মেয়র ও প্রকৌশলীগণস্ব-স্ব এলাকায় কি কি উন্নয়ন প্রয়োজন, তা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে তালিকা প্রণয়ন করে আগামী ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে জমা দেয়া সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এসব পৌরসভার সকল প্রকল্প একসাথে করে একটি বৃহৎ প্রকল্প আকারে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে। এরপর তা পরিকল্পণা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে একনেকে পাসের প্রয়াস চালানো হবে বলে সূত্র জানায়।

প্রস্তাবিত ওই উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হলে জেলার ১০টি পৌরসভার নাগরিকদের জীবনমান আরো উন্নত হবে এবং সেইসাথে নাগরিক সেবাও আরো বহুগুণে বৃদ্ধি পাবে বলে দৃঢ় প্রত্যাশা পোষন করেন পৌর মেয়রগণ।


মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি