মেসি না খেলায় কেন বিবৃতি দিলো হংকং সরকার?

সর্বমোট পঠিত : 22 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

এশিয়ায় প্রাক-মৌসুম সফরে গতকাল এক হাইব্রিড প্রীতি ম্যাচে হংকং একাদশের বিপক্ষে লড়ে লিওনেল মেসির ইন্টার মায়ামি। হংকং স্টেডিয়ামে হওয়া এই ম্যাচে মেসির খেলার কথা থাকলেও শেষে তাকে আর খেলাননি মায়ামি কোচ জেরার্ডো মার্টিনো। তবে মেসির মাঠে না নামাকে ভালো চোখে নেয়নি খোদ হংকং সরকার। হতাশা প্রকাশ করে তারা দিয়েছেন অর্থ কেটে রাখার ইঙ্গিত।


এশিয়ায় প্রাক-মৌসুম সফরে গতকাল এক হাইব্রিড প্রীতি ম্যাচে হংকং একাদশের বিপক্ষে লড়ে লিওনেল মেসির ইন্টার মায়ামি। হংকং স্টেডিয়ামে হওয়া এই ম্যাচে মেসির খেলার কথা থাকলেও শেষে তাকে আর খেলাননি মায়ামি কোচ জেরার্ডো মার্টিনো। তবে মেসির মাঠে না নামাকে ভালো চোখে নেয়নি খোদ হংকং সরকার। হতাশা প্রকাশ করে তারা দিয়েছেন অর্থ কেটে রাখার ইঙ্গিত।

ইন্টার মায়ামি ও হংকং একাদশের এ ম্যাচ আয়োজনের জন্য আয়োজকদের অনুদান দিয়েছিল হংকং সরকার। ইএসপিএন জানিয়েছে, মেসি না খেলায় আয়োজক টেটলার এশিয়ার ওপর তাই অসন্তুষ্ট হংকং সরকার। সরকারের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘মেসি না খেলায় সরকার ও ফুটবল-ভক্তরা আয়োজকদের কার্যক্রমে খুবই হতাশ। আয়োজকদের কাছে সব ফুটবল ভক্ত ব্যাখ্যা পাওয়ার দাবি রাখে। ’

বিবৃতিতে আরও জানানো হয়, মায়ামি-হংকং একাদশ ম্যাচের জন্য হংকংয়ের মেজর স্পোর্টস ইভেন্টস কমিটি (এমএসইসি) ভেন্যু বাবদ ১০ লাখসহ মোট দেড় কোটি হংকং ডলার (১৯ লাখ ২০ হাজার মার্কিন ডলার) অনুদান দিয়েছিল। এখন আয়োজকদের প্রদেয় অর্থ কেটে নেওয়ার কথাও জানানো হয়েছে, ‘এমএসইসি আয়োজকদের সঙ্গে হওয়া শর্তাবলির পরিপ্রেক্ষিতে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করবে, যার মধ্যে মেসি না খেললে তহবিলের পরিমাণ হ্রাস অন্তর্ভুক্ত। ’

মূলত হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটের কারণে মেসিকে নিয়ে ঝুঁকি নিতে চাচ্ছে না ইন্টার মায়ামি। গত বৃহস্পতিবার রাতে সৌদি আরবের আল নাসরের বিপক্ষে ম্যাচে মাত্র ৬ মিনিট খেলেছিলেন আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক। তবে হংকংয়ের নির্বাচিত একাদশের বিপক্ষে ম্যাচের আগে মেসিকে খেলানোর ইঙ্গিত দিয়েছিলেন মায়ামি কোচ। ফলে মেসিকে দেখতে হংকংয়ের ফুটবলপ্রেমীদের মধ্যে উৎসাহও ছিল ব্যাপক।

এএফপি জানায়, এক হাজার হংকং ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ১৪ হাজার টাকা) খরচ করে টিকিট কিনেছিলেন দর্শকেরা। ৩৮ হাজার ধারণক্ষমতার স্টেডিয়াম ছিল ভরা। কিন্তু যার খেলা দেখার জন্য তাদের উৎসাহ, সেই মেসিকে নামানোই হয়নি। খেলানো হয়নি আরেক তারকা লুইস সুয়ারেজকেও। দ্বিতীয়ার্ধের মাঝামাঝি সময় থেকে দর্শকেরা তাই ‘রিফান্ড’ চেয়ে আওয়াজ তোলেন। দর্শকদের হইচইয়ের পর ম্যাচশেষে মেসিকে না খেলানোয় তাদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন মার্টিনো।

চোটের কারণে মেসি ও সুয়ারেজের না খেলার বিষয়টি আয়োজকেরা জানতেন না বলেও দাবি করা হয় বিবৃতিতে, ‘সংবাদমাধ্যমে খবরে প্রকাশের পরও মেসি ও সুয়ারেজের না খেলা বিষয়ে ম্যাচের আগে কোনো তথ্যই জানত না টেটলার এশিয়া। ’

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি