স্বতন্ত্র ইবতেদায়ীর সমস্যা সমাধানে বাজেটে অন্তর্ভূক্ত করুন-শেরপুরে শাব্বীর আহমদ মোমতাজী

স্বতন্ত্র ইবতেদায়ীর সমস্যা সমাধানে বাজেটে অন্তর্ভূক্ত করুন-শেরপুরে শাব্বীর আহমদ মোমতাজী
সর্বমোট পঠিত : 236 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

সভায় অধ্যক্ষ মাওলানা নূরুল আমীনকে প্রধান উপদেষ্টা, অধ্যক্ষ মাওলানা ফজলুর রহমানকে সভাপতি, মোঃ মেরাজ উদ্দীনকে সাধারণ সম্পাদক ও মাওলানা আব্দুর রাজ্জাককে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট জেলা কমিটি গঠন করা হয়।

দেশের মাদরাসা শিক্ষাকে টিকিয়ে রাখতে, মাদরাসার স্বকীয়তা বজায়রেখে অগ্রসর হতে হলে ইবতেদায়ী স্তরের মাদরাসাসমূহ বিশেষ করে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসাসমূহের উন্নয়ন অপরিহার্য। ইবতেদায়ী স্তরের শিক্ষক-শিক্ষার্থীগণকে প্রয়োজনীয় সুযোগ সুবিধা প্রদান না করলে অদূর ভবিষ্যতে মাদরাসার উচ্চতর স্তরসমূহে শিক্ষার্থী সংখ্যা হ্রাস পাবে। বিষয়টি চলমান বাজেটে অন্তর্ভূক্ত করে আসুসমাধানের ঘোষণা অতিব জরুরী। 
গতকাল ৯ জুন শেরপুরে দেশের মাদরাসা শিক্ষক- কর্মচারীদের সর্ববৃহত্ত পেশাজীবী অরাজনৈতিক সংগঠন বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের মহাসচিব অধ্যক্ষ শাব্বীর আহমদ মোমতাজী এসব কথা বলেন।

জমিয়াতুল মোদার্রেছীন শেরপুর জেলা শাখা কর্তৃক আয়োজিত মাদরাসা শিক্ষার মান উন্নয়ন শীর্ষক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে জমিয়াত কেন্দ্রিয় মহাসচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ঐকান্তিত প্রচেষ্টা ও সদিচ্ছায় দেশের মাদরাসা শিক্ষার সকল স্তরে আজ উন্নয়ন বিরাজমান। প্রকৌশল, মেডিকেল, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠসমূহে মাদরাসা শিক্ষার্থীদের বিচরণ অহরহ। মোধাতালিকার অগ্রভাগে মাদরাসা শিক্ষার্থীরা স্থান করে নিতে সক্ষম হচ্ছে। কিন্তু অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় মাদরাসা শিক্ষার ফিডার ক্লাস তথা ইবতেদায়ী স্তর নানাভাবে বৈষম্যের স্বীকার হয়ে আজ শিক্ষার্থী শূন্য প্রায়। বিশেষ করে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসাসমূহের শিক্ষকগণ অত্যন্ত মানবেতর জীবন যাপন করছে। নূন্যতম সম্মনীটুকু পাচ্ছেন না। ফলে শ্রেণিকক্ষে পাঠদানে অনুৎসাহিত হচ্ছে তারা। একই সাথে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীরা যেসকল সুযোগসুবিধা ভোগ করেছ তার কিছুই স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী শিক্ষার্থীরা পাচ্ছেনা। ফলে ক্রমশ শিক্ষার্থী সংখ্যা হ্রাস পাচ্ছে। এর ধারা অব্যাহত থাকলে এবং দ্রুত আসুসমাধান না করলে একটা সময় মাদরাসা থাকবে কিন্তু শিক্ষার্থী খুঁজে পাওয়া যাবেনা। মাদরাসাসমূহ ধ্বংশের দ্বাড়প্রান্তে উপনিত হবে। ফলশ্রুতিতে মাদরাসা শিক্ষা উন্নয়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সকল অবদান ম্লান হয়ে যাবে। একইসাথে তিনি চলমান বাজেটে স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের বিষয়টি অন্তর্ভূক্ত করে উপস্থাপনের জন্য উদার্ত্ত আহ্বান জানান। 

বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীন শেরপুর জেলার সিনিয়ার সহসভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল হালিম মিয়া’র সভাপতিত্বে জেলা সেক্রেটারী মোঃ মেরাজ উদ্দীনের পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন, জমিয়াতের কেন্দ্রিয় জনকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা মোঃ মশিউর রহমান, মাওলানা ফজলুর রহমান, মওলানা আব্দুর রাজ্জাক, মাওলানা জামাল উদ্দিন, মাওলানা শরাফত আলী, মাওলানা আইন উদ্দীন, মাওলানা আতাউর রহমান, মাওলানা আব্দুস ছামাদ, আবু বকর সিদ্দিক, মাওলানা মোস্তাফিজুর রহমান, মাওলানা মাহমুদ মোস্তফা, মাওলানা জাহেদ উল্লাহ, মাওলানা আব্দুস সামাদ, মাওলানা এরশাদ আলী, মাওলানা মোঃ আব্দুল্লাহ, মাওলানা মোঃ আতাউল্যাহ, মাওলানা হযরত আলী, মাওলানা শাহ আলম প্রমুখ। 

সভায় অধ্যক্ষ মাওলানা নূরুল আমীনকে প্রধান উপদেষ্টা, অধ্যক্ষ মাওলানা ফজলুর রহমানকে সভাপতি, মোঃ মেরাজ উদ্দীনকে সাধারণ সম্পাদক ও মাওলানা আব্দুর রাজ্জাককে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট জেলা কমিটি গঠন করা হয়।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি