ইটভাটার বিষাক্ত গ্যাসে আম-লিচুসহ ফসলের ব্যাপক ক্ষতি


নিউজ ডেস্ক:
দিনাজপুরের পার্বতীপুর উপজেলার হামিদপুর ইউনিয়নে ইটভাটার বিষাক্ত গ্যাসে প্রায় তিনশ একর জমির ফসল, আম-লিচুসহ মৌসুমী ফলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

ইটভাটা বন্ধে দৃশ্যমান কার্যক্রম না থাকলেও, ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জরিমানা এবং ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দিয়েছে প্রশাসন।

পার্বতীপুর উপজেলার হামিদপুর ইউনিয়নে ১৯টি ইটভাটা। বিষাক্ত ধোঁয়ায় প্রায় তিনশ একর জমির ফসল, আম, লিচুসহ মৌসুমী ফলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। দুইশ একর জমির ধানের পাশাপাশি, একশ একর জমির আম, লিচু, কাঁঠাল, কলা, পেয়ারা, নারিকেলসহ বিভিন্ন ফল ঝরে পড়েছে।

ইটভাটার কারণে কয়েক বছর ধরেই ক্ষতিগ্রস্ত ফসল ও ফল। তবে এবার ক্ষতি বেশি হওয়ায় টনক নড়েছে কৃষকের।

তারা বলেন, আমাদের এবারে আমের বাগানে যে ক্ষতি হয়েছে তা ইটভাটার জন্যই হয়েছে। ইটভাটার কারণে কোনবছরই আমরা ঠিকমত লাভ করতে পারিনি। এবার আরও বেশি ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া শুধু ফসল না মানুষের শরীরেও অনেক ধরনের রোগ দেখা দিচ্ছে।

কৃষকদের দাবির প্রতি সংহতি জানিয়েছে বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংস্থা। দিনাজপুর ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন নান্নু বলেন, ইটভাটার কারণে কৃষকদের যে ক্ষতি হয়েছে তাদের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ আমরা দাবি করছি। এছাড়া দ্রুত এসব ইটভাটা বন্ধেরও দাবি জানাচ্ছি।

ক্ষতিগ্রস্তদের অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেবে পরিবেশ অধিদপ্তর। পরিবেশ অধিদপ্তরের সিনিয়র কেমিস্ট ছামিউল আলম কুরসি বলেন, অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান চলমান আছে। যদি কোন পক্ষ ইটভাটা দ্বারা ক্ষতিগ্রস্থ হয় সেক্ষেত্রে আমরা লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নিব।

প্রশাসন বলছে, চিহ্নিত ইটভাটাকে জরিমানার পাশাপাশি, ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারণ করে পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসিদ কায়সার রিয়াদ বলেন, আমরা এই বিষয়ে অবশ্যই ব্যবস্থা নিয়েছি। সবগুলো প্রতিষ্ঠানকে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া কি পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তার একটা রিপোর্ট বানিয়ে আমরা কৃষি মন্ত্রণালয়েও পাঠাবো।

কৃষি জমি এলাকা থেকে অবিলম্বে ইটভাটা অপসারণে কার্যকর পদক্ষেপের দাবি কৃষকসহ এলাকাবাসীর।

Top
ঘোষনাঃ