লক্ষ্মীপুরে সাবেক যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা

সর্বমোট পঠিত : 248 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তৌহিদুল ইসলাম বলেন, পূর্বশত্রুতা বা আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ঘটনাটি ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে কে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে, সেটা জানা যায়নি। ওই এলাকায় পুলিশের অভিযান চলছে। জড়িত ব্যক্তিদের দ্রুত গ্রেপ্তারে পুলিশ কাজ করছে।


লক্ষ্মীপুর জেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল নোমান (৪০) ও ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক রাকিব ইমামকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার রাজ সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে রাতে শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন যুবলীগসহ আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মঙ্গলবার রাতে মোটরসাইকেলযোগে ফিরছিলেন নোমান।
পথে দুর্বৃত্তরা তাঁর ওপর হামলা চালায়। গুলির শব্দ শুনে আশপাশের মানুষ এগিয়ে এলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। এরপর মুমূর্ষু অবস্থায় নোমানকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা মো. আনোয়ার হোসেন জানান, একাধিক গুলিতে নোমান জখম হয়েছেন। হাসপাতালে আনার আগেই তাঁর মৃত্যু হয়। রাকিবকে গুরুতর আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে সাড়ে ১১টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

বশিকপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও নোমানের বড় ভাই মাহফুজুর রহমান অভিযোগ করে বলেন, চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনকে ঘিরে দ্বন্দ্বের জের ধরে তাঁর ভাইকে হত্যা করা হয়েছে।

চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তৌহিদুল ইসলাম বলেন, পূর্বশত্রুতা বা আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ঘটনাটি ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে কে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে, সেটা জানা যায়নি। ওই এলাকায় পুলিশের অভিযান চলছে। জড়িত ব্যক্তিদের দ্রুত গ্রেপ্তারে পুলিশ কাজ করছে।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি