বিশ্বের সেরা বিচ সাইড লাক্সারি রিসোর্ট এর স্বীকৃতি পেয়েছে রয়েল টিউলিপ সী পার্ল

সর্বমোট পঠিত : 78 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

আন্তর্জাতিক সেরা সেরা রিসোর্টকে পেছনে ফেলে বিশ্বের সর্ববৃহৎ সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারের ইনানী বিচে গড়ে তোলা হয়েছে ফাইভ স্টার হোটেল রয়েল টিউলিপ সী পার্ল বিচ রিসোর্ট এন্ড স্পা-কে তিনটি ক্যাটাগরিতে পৃথিবীর সেরা বিচ সাইড লাক্সারি রিসোর্ট হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে গ্লোবাল অর্গানাইজেশন ‘দ্য ওয়ার্ল্ড লাক্সারি হোটেল অ্যাওয়ার্ডস’। রয়েল টিউলিপ সী পার্ল বিচ রিসোর্ট এন্ড স্পা-এর চেয়ারম্যান মিসেস লুসি আখতারি মহল, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও এফবিসিসিআই সহ-সভাপতি মোঃ আমিনুল হক শামীম সিআইপি এবং পরিচালক ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু প্রতিক্রিয়ায় জানান বিশ্বের উন্নত সেবা দিয়ে আমরা এই অর্জনটা পেয়েছি। বিশ্বের নামী-দামী রিসোর্টকে পেছনে ফেলে আমাদের এই প্রাপ্তিটা সমগ্র বাংলাদেশের গর্ব। এই প্রতিষ্ঠানের উত্তরোত্তর সাফল্য ও উন্নতি কামনা করছি।


আন্তর্জাতিক সেরা সেরা রিসোর্টকে পেছনে ফেলে বিশ্বের সর্ববৃহৎ সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারের ইনানী বিচে গড়ে তোলা হয়েছে ফাইভ স্টার হোটেল রয়েল টিউলিপ সী পার্ল বিচ রিসোর্ট এন্ড স্পা-কে তিনটি ক্যাটাগরিতে পৃথিবীর সেরা বিচ সাইড লাক্সারি রিসোর্ট হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে গ্লোবাল অর্গানাইজেশন ‘দ্য ওয়ার্ল্ড লাক্সারি হোটেল অ্যাওয়ার্ডস’। রয়েল টিউলিপ সী পার্ল বিচ রিসোর্ট এন্ড স্পা-এর চেয়ারম্যান মিসেস লুসি আখতারি মহল, ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও এফবিসিসিআই সহ-সভাপতি মোঃ আমিনুল হক শামীম সিআইপি এবং পরিচালক ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু প্রতিক্রিয়ায় জানান বিশ্বের উন্নত সেবা দিয়ে আমরা এই অর্জনটা পেয়েছি। বিশ্বের নামী-দামী রিসোর্টকে পেছনে ফেলে আমাদের এই প্রাপ্তিটা সমগ্র বাংলাদেশের গর্ব। এই প্রতিষ্ঠানের উত্তরোত্তর সাফল্য ও উন্নতি কামনা করছি।

পূর্বে রয়েল টিউলিপ হিসেবে পরিচিত দেশের সবচেয়ে বড় এই লাক্সারি রিসোর্টটি সেরা বিচ সাইড লাক্সারি হোটেল অ্যাওয়ার্ডের পাশাপাশি সেরা লাক্সারি স্পা অ্যাওয়ার্ডও জিতেছে। এছাড়া সেরা জেনারেল ম্যানেজার অ্যাওয়ার্ড জিতেছেন সি পার্ল বিচ রিসোর্ট অ্যান্ড স্পার গ্রুপ জিএম আজিম শাহ। সি পার্ল বিচ রিসোর্ট অ্যান্ড স্পার ব্র্যান্ড অ্যান্ড মার্কেটিং প্রধান আসাদুর রহমান এতথ্য জানিয়েছেন।

সম্প্রতি তুর্কীর আনটালিয়ার সোয়ানডর হোটেলস ও রিসোর্টে অনুষ্ঠিত ২০২২ দ্য ওয়ার্ল্ড লাক্সারি হোটেল অ্যাওয়ার্ডসের গালা সিরিমনিতে এই ঘোষণা দেওয়া হয়। বিশ্বব্যাপী সার্ভিস ইন্ডাস্ট্রির সেবার মানদন্ড ঠিক করে পৃথিবীর বিভিন্ন অভিজাত হোটেলগুলোর মধ্য থেকে সেরাদের অ্যাওয়ার্ড দিয়ে থাকে দ্য ওয়ার্ল্ড লাক্সারি হোটেল অ্যাওয়ার্ডস। দেশের ট্রাভেল সেক্টরের জন্য এটি একটি বড় অর্জন। সারা পৃথিবীর সেরা সেরা রিসোর্টকে পেছনে ফেলে দেশের একটি রিসোর্টের তিন ক্যাটাগরিতে সেরা অ্যাওয়ার্ড জেতার ঘটনা এদেশের ট্যুরিজম সেক্টরকে অনেক দূর এগিয়ে নেবে বলে মনে করেন পর্যটন বিশেষজ্ঞরা।

আজিম শাহ জানালেন, সি পার্লকে শুধু দেশের নয় পৃথিবীর সেরা রিসোর্টে পরিণত করার জন্য কাজ করে চলেছে পুরো টিম এবং এই স্বীকৃতি পুরো টিমকে আরও বেশিঅনুপ্রাণিত করবে। সেবার মান প্রতিনিয়ত বাড়ানোর মাধ্যমে দেশের ভ্রমণ প্রিয় ট্রাভেলারদের সেরা সেবা দেওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন দেশ থেকে আসা পর্যটকদের জন্য আন্তর্জাতিকমানের সেবার ব্যবস্থা রয়েছে এখানে।

রয়েল টিউলিপ সী পার্ল বিচ রিসোর্ট এন্ড স্পা : বিশ্বের সর্ববৃহৎ সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারের ইনানী বিচে গড়ে তোলা হয়েছে ফাইভ স্টার হোটেল রয়েল টিউলিপ সী পার্ল বিচ রিসোর্ট এন্ড স্পা (Royal Tulip Sea Pearl Beach Resort And Spa) | এক পাশে সমুদ্র আর অন্য পাশে আকাশচুম্বী পাহাড় নিয়ে পর্যটকদের স্বাগত জানাতে সর্বদা প্রস্তুত স্পেনীয় স্থাপত্যরীতিতে নির্মিত লাক্সারিয়াস এই রিসোর্টটি। ২০১৫ সালের ১৭ই সেপ্টেম্বর চালু হওয়া কক্সবাজারের ইনানী বিচে ১৫ একর জমির ওপর প্রতিষ্ঠিত হয় এই পাঁচ তারকা হোটেল। প্রায় ৫০ বিঘা জায়গা জুড়ে বিস্তৃত রিসোর্টের ভেতর এবং বাহিরের প্রতিটি নির্মাণেই আভিজাত্য এবং স্বকীয়তা বিশেষভাবে চোখে পড়ে, যা হোটেলে আগত অতিথিদের কাছে রাজকীয় অনুভূতি এনে দেয়।

রয়েল টিউলিপ সী পার্ল বিচ রিসোর্টের বিশেষ বৈশিষ্ট হল এই রিসোর্টের নিজস্ব সমুদ্র সৈকত রয়েছে। রিসোর্ট থেকে অল্প দূরত্বে রয়েছে পর্যটকদের ভ্রমণের অন্যতম আকর্ষণ হিমছড়ি ঝর্ণা, দরিয়া নগর ও বার্মিজ মার্কেট। খোলামেলা জায়গা এবং মুক্তমঞ্চ থাকার ফলে ডেস্টিনেশন ওয়েডিং, গালা নাইট, ফ্যামিলি প্রোগ্রাম, ফ্যাশন শো, সভা, সমাবেশসহ যে কোন ধরনের ইভেন্ট অনায়াসেই আয়োজন করা যায়।

রয়েল টিউলিপ সী পার্ল বিচ রিসোর্টটিতে রয়েছে ৪৯৩টি কক্ষ। যেখানে হিল ভিউ এবং সি ভিউ এই দুই রকম ভিউয়ের মিশ্রণ রয়েছে সুপেরিয়র কক্ষে। প্রিমিয়াম সি ভিউ স্যুইটে মিলবে কিচেন, ডাইনিং ও লিভিং এরিয়া। প্যানারমিক সি ভিউ স্টুডিও স্যুইটে মিলবে কিচেন, ডাইনিং, লিভিং এরিয়া ও ব্যালকনি। দুই ধরনের ভিন্ন আয়তনের এক্সিকিউটিভ স্যুইটেও রয়েছে একই ধরনের সুবিধা। ফ্যামিলি স্যুইটে আছে সৈকতমুখী ব্যালকনি, আলাদা লিভিং স্পেস, তিনটি ওয়াশরুম, একটি মাস্টার বেডরুম এবং একটি চিলড্রেনস রুম। এছাড়াও বিশেষ ব্যক্তিদের জন্য রয়েছে প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুইট। বিশাল আয়তনের রাজসিক অন্দরসজ্জা ও ফার্নিচারের পাশাপাশি এখানে রয়েছে বড় একটি বারান্দা। আর নবদম্পতিদের জন্য রয়েছে লাক্সারি হানিমুন স্যুইট, যেখানে একটি সংসারের প্রয়োজনীয় সবকিছুই রাখা হয়েছে আর সেই সাথে থাকছে জ্যাকুজি এবং সুইমিংপুল। এসব ছাড়াও রয়েল টিউলিপ সী পার্ল বিচ রিসোর্টের প্রতিটি রুমেই রয়েছে মিনিফ্রিজ, টি/কফি মেকার, টিভি, পানির বোতল, শাওয়ার কিউবিকল, ২৪ ঘণ্টার রুম সার্ভিস এবং ফ্রি ওয়াইফাইয়ের সুবিধা।

রয়েল টিউলিপ সী পার্ল বিচ রিসোর্টের অন্যান্য সুযোগ সুবিধার মধ্যে রয়েছে আন্তর্জাতিকমানের বার, কফি শপ, সুইমিং পুল, শিশুগ্রাউন্ড, ওয়াটার পার্ক, টেনিস, ব্যাডমিন্টন কোর্ট, থ্রিডি মুভি হল, বিলিয়ার্ড, ব্যায়ামাগার এবং স্পা। আর আউটডোর এ্যাকটিভিটির মধ্যে আছে প্যারাসেইলিং, স্নোরকেলিং, ডিপসি ফিশিং এবং স্পিডবোট রাইড সুবিধা। এছাড়াও সম্মেলন ও উৎসব আয়োজনের জন্য রয়েছে ১০ হাজার বর্গফুট বিস্তৃত জায়গা, দুটি সেমিনার কক্ষ ও একটি বিশাল বলরুম।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি