বাগেরহাটের শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক মোংলার নরেশ হালদার ও শ্রেষ্ঠ স্কাউট আয়শা

বাগেরহাটের শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক মোংলার নরেশ হালদার ও শ্রেষ্ঠ স্কাউট আয়শা
সর্বমোট পঠিত : 1,383 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

১৯৮৫ সালে প্রতিষ্ঠিত মোংলা উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে মাঝে মধ্যে দেয়াল পত্রিকা প্রকাশের সুযোগ ঘটলেও বার্ষিক  ম্যাগাজিন প্রকাশের সুযোগ ঘটেনি। ২০১৭ সালের শেষের দিকে প্রথম ম্যাগাজিন প্রকাশের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। ২০১৮ সালে ভাষার মাসে ‘স্বাগত’ নাম নিয়ে ৫২ পৃষ্ঠার বার্ষিক ম্যাগাজিন প্রকাশ করা হয়। আগামীতে আবারও বার্ষিক ম্যাগাজিন ‘স্বাগত’ প্রকাশের পরিকল্পনা আছে।

২০২২ সালে মাধ্যমিক বিদ্যালয় পর্যায়ে বাগেরহাট জেলার শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান প্রধান (প্রধান শিক্ষক) নির্বাচিত হয়েছেন মোংলা উপজেলার নরেশ চন্দ্র হালদার। জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ-২০২২ উপলক্ষে জেলা যাচাই বাছাই কমিটি তাকে জেলার শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান প্রধান হিসেবে নির্বাচিত করেছে। এর আগে তিনি মোংলা উপজেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান প্রধান নির্বাচিত হন।নরেশ চন্দ্র হালদার মোংলা উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। এছাড়াও তিনি উপজেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ স্কাউট নির্বাচিত হয়েছেন।

তাঁর বাড়ি মোংলা পোর্ট পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সিগনাল টাওয়ার গ্রামে। ২০১৫ সালের ২৩ নভেম্বর তিনি মোংলা  উচ্চ বালিকা  বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। এর আগে তিনি ঐতিহ্যবাহী সেন্ট পলস  উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

এদিকে মোংলা উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আয়েশা সিদ্দিকা পূর্ণিমা জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ- ২০২২ উপলক্ষে উপজেলা ও জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ স্কাউট নির্বাচিত হয়েছে। তিনি মৃত জাহাঙ্গীর হোসেন ও তাহিরা বেগমের কন্যা। এছাড়াও এ স্কুল থেকে ২০২০ সালে ২ জন প্রেসিডেন্ট স্কাউট এ্যাওয়ার্ড  ও শাপলা কাব এ্যাওয়ার্ড অর্জন করেন। সম্মানজনক পদকে ভূষিত আয়শা সিদ্দিকা পূর্ণিমা, আসমানী ও সেজুঁতি হালদার প্রজ্ঞার এই সাফল্যে মোংলা উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় আরো বেশি পরিচিতি লাভ করে।

২০২০ সালে ৪৯ তম শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বিদ্যালয়ের ছাত্রী বর্ণা আক্তার 'দীর্ঘলাফ' প্রতিযোগিতায় উপজেলা ও জেলা পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হয়ে জাতীয় পর্যায়ে ২য় স্থান অধিকার করে চমক সৃষ্টি করেন।

২০২২ সালে অনুষ্ঠিত ৫০ তম শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় মোংলা উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী কানিজ ফাতেমা ঋতু 'বর্শা নিক্ষেপ' প্রতিযোগিতায় উপজেলা ও জেলা পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হয়ে জাতীয় পর্যায়ে অংশগ্রহণ করে ৪র্থ স্থান লাভ করে স্কুলের সুনাম ধরে রাখেন।

ব্রিটিশ কাউন্সিল প্রদত্ত আইএসএ অর্জন শিক্ষার্থীদের যোগ্য ও আদর্শ নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষে ব্রিটিশ কাউন্সিলের আওতায় মোংলা উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় ২০১৮-২০১৯ খ্রিস্টাব্দে ভারত, পাকিস্তান, নেপাল ও আফগানিস্তান এই চারটি দেশের সাথে যৌথভাবে এসডিজি ও ভিশন ২০৪১এর লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যকে বাস্তবায়নে নিরলসভাবে কাজ করে যায়। উক্ত কাজের ফলশ্রুতিতে ২০২০ সালে ব্রিটিশ কাউন্সিল প্রদত্ত আইএসএ এ্যাওয়ার্ড অর্জন করার গৌরব লাভ করে। বিদ্যালয় আইএসএ ক্রেস্ট এবং প্রতিষ্ঠান প্রধান ও কো-অর্ডিনেটর কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ সনদপত্র লাভ করেন। সারা বাংলাদেশে এ গ্রেড পাওয়া ১৩টি প্রতিষ্ঠানকে এই এ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়।

কোমলমতি শিক্ষার্থীদের প্রতিভা বিকাশে মোংলা উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় সদা তৎপর। সাধারণ শিক্ষার পাশাপাশি সহপাঠক্রমিক বিষয়গুলোকের বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে থাকে। চারিদিকে ভবন বেষ্টিত বিদ্যালয়ের কেন্দ্রে আছে প্রশস্ত খেলার মাঠ। এই মাঠে আউটডোর গেমস হিসেবে শিক্ষার্থীরা ফুটবল, ক্রিকেট, , হ্যান্ডবল, ভলিবল, কাবাডি ইত্যাদি দলীয় খেলা অনুশীলন করে থাকে। ইনডোর গেমস হিসেবে ব্যাডমিন্টন, টেবিল টেনিস, দাবা, লুডু, কেরাম ইত্যাদি খেলা অনুশীলন করে থাকে। এ্যাথলেটিকসে দৌড়, দীর্ঘ লাফ, উচ্চ লাফ, দড়ি লাফ, চাকতি নিক্ষেপ, লৌহ গোলক নিক্ষেপ, বর্ষা নিক্ষেপ, সঁাতার ইত্যাদি ব্যক্তিগত ইভেন্টে শিক্ষার্থীরা নিয়মিত অনুশীলন করে থাকে। এ্যাথলেটিকসে শিক্ষার্থীরা জাতীয় পর্যায় পর্যন্ত অংশগ্রহণ করেছে এবং পুরষ্কার অর্জন করেছে।

১৯৮৫ সালে প্রতিষ্ঠিত মোংলা উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে মাঝে মধ্যে দেয়াল পত্রিকা প্রকাশের সুযোগ ঘটলেও বার্ষিক  ম্যাগাজিন প্রকাশের সুযোগ ঘটেনি। ২০১৭ সালের শেষের দিকে প্রথম ম্যাগাজিন প্রকাশের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। ২০১৮ সালে ভাষার মাসে ‘স্বাগত’ নাম নিয়ে ৫২ পৃষ্ঠার বার্ষিক ম্যাগাজিন প্রকাশ করা হয়। আগামীতে আবারও বার্ষিক ম্যাগাজিন ‘স্বাগত’ প্রকাশের পরিকল্পনা আছে।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি