লিজেন্ডস কাপে টানা দুইবারের চ্যাম্পিয়ন “লিজেন্ডস অব গজনী অবকাশ”

সর্বমোট পঠিত : 42 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

ঈদুল ফিতরের দ্বিতীয় ও তৃতীয় দিন (দুই দিন ব্যাপী) ঝিনাইগাতী উপজেলার “শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম” এ ‘‘মোবাইল ছেড়ে মাঠে চল, মাঠের খেলায় বাড়ে বল’’এই স্লোগানে সাবেক ক্রিকেটারদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হয় এই টুর্নামেন্ট। ঝিনাইগাতী উপজেলার সাবেক ক্রিকেটার ও দেশের বিভিন্নস্থানে কর্মরত সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তাদের সমন্বিত উদ্যোগে চারটি দলের অংগ্রহণে এই টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়।

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে প্রয়াস লিজেন্ডস কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট-২০২২ এ টানা দুইবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হয়েছে লিজেন্ডস অব গজনী অবকাশ।

ঈদুল ফিতরের দ্বিতীয় ও তৃতীয় দিন (দুই দিন ব্যাপী) ঝিনাইগাতী উপজেলার “শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম” এ ‘‘মোবাইল ছেড়ে মাঠে চল, মাঠের খেলায় বাড়ে বল’’এই স্লোগানে সাবেক ক্রিকেটারদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হয় এই টুর্নামেন্ট। ঝিনাইগাতী উপজেলার সাবেক ক্রিকেটার ও দেশের বিভিন্নস্থানে কর্মরত সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তাদের সমন্বিত উদ্যোগে চারটি দলের অংগ্রহণে এই টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়।

আয়োজকদের তথ্যমতে, দুই দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত ও ২০ ওভারে সীমিত এই ক্রিকেট আসরে উপজেলার চারটি দল অংশ গ্রহণ করছে। দলগুলো হচ্ছে লিজেন্ডস অব মহারশি, লিজেন্ডস অব সোমেশ্বরী, লিজেন্ডস অব গজনী অবকাশ ও লিজেন্ডস অব সীমান্ত।

দ্বিতীয় আসরের খেলায় ম্যান অব দ্যা টুর্নামেন্ট হয়েছেন মনির মিয়া, বেস্ট বলার অব দ্যা টুর্নামেন্ট হয়েছেন পবিত্র বর্মণ, বেস্ট ব্যাটসম্যান নির্বাচিত হয়েছেন সাব্বির হাসান রিয়েল। এবারের খেলায় লিজেন্ডস অব মহারশীকে হারিয়ে টানা দ্বিতীয় বারের মতো চ্যাম্পিয়ন হয়েছে লিজেন্ডস অব গজনী অবকাশ।

এবারের আসরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় নারী ক্রিকেট দলের অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতি। সাবেক খেলোয়াড়দের এই আয়োজন দেখতে ঈদের ছুটিতে ভীড় ছিলো ঝিনাইগাতী শেখ রাসেল মিনি ষ্টেডিয়ামে। আগত সকল দর্শকদের পরিবেশ বন্ধু গাছ উপহার দিয়েছে টুর্নামেন্ট পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক মো: সাখাওয়াত হোসেন পাঠান।

খেলায় অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার, ফেসবুক লাইভ ও ঘরে বসে খেলা দেখার জন্য স্থানীয় টিভি চ্যানেলে সরাসরি সম্প্রচারের ব্যবস্থা করা হয়। মাঠের শৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত ছিলো বাংলাদেশ স্কাউটের একটি সুদক্ষ টিম। দ্বিতীয় আসরের টাইটেল স্পন্সর ছিলো স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন প্রয়াস ঝিনাইগাতী।

আয়োজন সম্পর্কে পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক মো: সাখাওয়াত হোসেন পাঠান বলেন, সবুজে ঘেরা ঝিনাইগাতী উপজেলায় আশি এবং নব্বই এর দশকে ক্রিকেট এর একটি ঐতিহ্য ছিলো। থানা রোড স্পোর্টিং ক্লাব, উপজেলা ক্রিকেট একাদশ, নিউ স্টার ক্রিকেট ক্লাব, শালচূড়া স্পোর্টিং ক্লাব, মোল্লাপাড়া ক্রিকেট ক্লাব, খৈলকুড়া ক্রিকেট একাদশ, মরিয়ম নগর চাসং গিত্তালনী ক্রিকেট ক্লাব সহ আরও অনেক নামকরা ক্রিকেট ক্লাবগুলোর পদচারণা এ উপজেলার ক্রিকেটের প্রাণ ছিলো। মানুষ জন ক্রিকেট মাঠমুখী ছিলো। বছরের প্রায় পুরোটা সময় জুড়ে ঝিনাইগাতী স্টেডিয়াম মাঠে ক্রিকেট টুর্নামেন্ট চলতো। কিন্তু স্মার্টফোনের এই যুগে ছেলেরা আজ অনেকটাই ঘরমুখো। মাঠের ক্রিকেট আজ প্রায় বিলুপ্তির পথে। সেই পথ থেকে উত্তরণের জন্য “মোবাইল ছেড়ে মাঠে চল, মাঠের খেলায় বাড়ে বল”এই স্লোগানে বর্তমান প্রজন্ম কে আবারো মাঠের খেলায় উদ্বুদ্ধ করাই আমাদের আয়োজনের মূল উদ্দেশ্য।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি