দু-এক বছর পর জেএসসি পরীক্ষা থাকছে না

সর্বমোট পঠিত : 62 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

জেএসসি পরীক্ষা নিয়ে জানতে চাইলে মহাপরিচালক বলেন, জেএসসি পরীক্ষা নিয়ে একটি ভুল বোঝাবুঝি আছে। অনেকে মনে করেন জেএসসি একটি পাবলিক পরীক্ষা। কিন্তু এটি পাবলিক পরীক্ষা নয়। মন্ত্রণালয়ের একটি আদেশের বলে এ পরীক্ষাটি নেয়া হয়। তিনি বলেন, জেএসসি পরীক্ষা গত দুই বছর আমরা নিচ্ছি না। শিক্ষার্থীদের আমরা একটি সনদ দিয়ে দিচ্ছি। চলতি বছরের জেএসসি পরীক্ষা হবে কি হবে না তা নিয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। কিন্তু দু-এক বছর পর জেএসসি পরীক্ষা এমনিতেই থাকছে না।

অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষা দু এক বছরের মধ্যেই উঠে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদ। তিনি বলেছেন, চলতি বছরের জেএসসি পরীক্ষা নিয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

শনিবার রাতে দৈনিক শিক্ষাডটকম ও দেশ টিভির উদ্যোগে আয়োজিত ‘শিক্ষা বৈঠকী’ অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে এসব কথা জানান মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের নবনিযুক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদ।

নতুন কারিকুলাম বাস্তবায়ন শুরু হলে ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ থেকে জেএসসি পরীক্ষা উঠে যাওয়ার কথা ছিলো।

জেএসসি পরীক্ষা নিয়ে জানতে চাইলে মহাপরিচালক বলেন, জেএসসি পরীক্ষা নিয়ে একটি ভুল বোঝাবুঝি আছে। অনেকে মনে করেন জেএসসি একটি পাবলিক পরীক্ষা। কিন্তু এটি পাবলিক পরীক্ষা নয়। মন্ত্রণালয়ের একটি আদেশের বলে এ পরীক্ষাটি নেয়া হয়।

তিনি বলেন, জেএসসি পরীক্ষা গত দুই বছর আমরা নিচ্ছি না। শিক্ষার্থীদের আমরা একটি সনদ দিয়ে দিচ্ছি। চলতি বছরের জেএসসি পরীক্ষা হবে কি হবে না তা নিয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। কিন্তু দু-এক বছর পর জেএসসি পরীক্ষা এমনিতেই থাকছে না।

জানা গেছে, ২০২৩ খ্রিষ্টাব্দ থেকে নতুন শিক্ষাক্রম বাস্তবায়ন শুরু হবে। এ শিক্ষাক্রমে  মাধ্যমিক পর্যায়ে শুধু দশম শ্রেণিতে একটি ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যয়ে একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণিতে একটি পরীক্ষা হবে। একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির ফল নিয়ে উচ্চমাধ্যমিকের চূড়ান্ত ফল নির্ধারণ হবে। ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ৮ম ও ৯ম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা নতুন শিক্ষাক্রমের আওতায় আসবে। যদি এমন সিদ্ধান্তই বাস্তবায়ন হয় তাহলে আগামী ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের জেএসসি পরীক্ষাও থাকবে না।

২০২৩ খ্রিষ্টাব্দের ১ম ও ২য় শ্রেণি ও ৬ষ্ঠ ও ৭ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে শিক্ষাক্রম বাস্তবায়ন শুরু হবে। ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দের ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণি এবং ৮ম ও ৯ম শ্রেণি এ শিক্ষাক্রমের আওতায় আসবে। এ শিক্ষাক্রমের আওতায় ২০২৫ খ্রিষ্টাব্দের মধ্যে সব শিক্ষার্থীকে নিয়ে আসা হবে। নতুন শিক্ষাক্রম অনুসারে নবম দশম শ্রেণিতে বিভাগ থাকবে না। নতুন শিক্ষাক্রমের রূপরেখা অনুসারে আগামী ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দ থেকে মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের বিভাগ বিভাজন উঠে যাচ্ছে। ২০২৪ খ্রিষ্টাব্দে ৯ম শ্রেণির ও ২০২৫ খ্রিষ্টাব্দে দশম শ্রেণির বিভাগ বিভাজন উঠছে।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি