পুলিশ কনস্টেবলে যোগদান করলেন সেই আসপিয়া

আসপিয়া ইসলাম
সর্বমোট পঠিত : 156 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

আসপিয়াকে সাহসী উল্লেখ করে তার মতো একজন সহকর্মী পেয়ে খুশী অন্যান্য নিয়োগপ্রাপ্তরা। আসপিয়াকে উদাহরণ রেখে ভূমিহীনদের চাকরি পাওয়ার অনিশ্চয়তা দূর করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে দাবী জানিয়েছেন সুশীল নেতৃবৃন্দ। আসপিয়ার মতো মেধাবী এবং সাহসীদের পুলিশে স্বাগত জানিয়েছেন বরিশালের রেঞ্জ ডিআইজি।

ভূমিহীন হওয়ায় ট্রেইনি পুলিশ কনস্টেবলে চাকরি হচ্ছিল না বরিশালের হিজলার সেই কলেজছাত্রী আসপিয়া ইসলাম। গণমাধ্যমে খবর প্রচার হলে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টিতে পরে। এরপর সরকারের কাছ থেকে ঘর পায় আসপিয়া। এবার প্রতিক্ষার অবসান ঘটলো তার। ট্রেইনি রিক্রুট পুলিশ কনস্টেবল পদে (টিআরসি) পদে যোগ দিলেন তিনি।

প্রথমে করোনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। রিপোর্টে নেগেটিভ হলে তাদের পাঠানো হবে ৬ মাসের প্রশিক্ষণে। পুলিশে যোগদান করতে পেরে এতে খুশি আসপিয়া ও তার পরিবার। কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন গণমাধ্যম এবং সর্বোপরি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার।

আসপিয়াকে সাহসী উল্লেখ করে তার মতো একজন সহকর্মী পেয়ে খুশী অন্যান্য নিয়োগপ্রাপ্তরা। আসপিয়াকে উদাহরণ রেখে ভূমিহীনদের চাকরি পাওয়ার অনিশ্চয়তা দূর করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে দাবী জানিয়েছেন সুশীল নেতৃবৃন্দ। আসপিয়ার মতো মেধাবী এবং সাহসীদের পুলিশে স্বাগত জানিয়েছেন বরিশালের রেঞ্জ ডিআইজি।  

স্বপ্নের নিয়োগপত্র হাতে পেয়েছিলেন গত ২৫ নভেম্বর রাতে। তার আগেই তার জন্য প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর নির্মাণের কাজ শুরু হয় হিজলায়। পূর্ব নির্দেশনা অনুযায়ী আজ সকাল ১০টার মধ্যেই বরিশাল জেলা পুলিশ লাইনে হাজির হন ট্রেইনি পুলিশ কনস্টেবল পদে নতুন নিয়োগ পাওয়া আসপিয়াসহ ৭ জন নারী এবং ৪১ জন পুলিশ সদস্য। চোখে-মুখে তাদের খুশির ঝিলিক। দেশ সেবার স্বপ্ন। প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে আজ সকালে বরিশাল জেনারেল হাসপাতালে তাদের সকলের করোনা পরীক্ষা করা হয়। রিপোর্ট পেলে তাদের পাঠানো হবে ৬ মাসের প্রশিক্ষণে। নতুন নিয়োগপ্রাপ্তদের আজ দুপুরে সংবর্ধনা দেয় জেলা পুলিশ।  

৭ স্তরের পরীক্ষায় পঞ্চম হলেও ভূমিহীন হওয়ায় চাকরি থেকে প্রায় বাদ পড়তে যাওয়া আসপিয়া নতুন জীবন পেয়েছেন গণমাধ্যমের বদৌলতে। চাকরি এবং ঘর পেয়ে খুশি তিনি ও তার পরিবার। ধন্যবাদ জানালেন প্রধানমন্ত্রী, গণমাধ্যম এবং দেশবাসীর প্রতি।  

আসপিয়ার মতো একজন সাহসী সহকর্মী পেয়ে খুশি তার নতুন সহকর্মীরা। খুশী এলাকাবাসীও।  

ভূমিহীন আসপিয়াকে যোগ্যতাবলে চাকরি এবং ঘর দেয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন বরিশাল সচেতন নাগরিক কমিটির (সনাক) সভাপতি অধ্যাপক শাহ সাজেদা। এই বিষয়টি আইনে পরিণত করার দাবী জানিয়েছেন তারা।  

আসপিয়ার মতো সাহসী এবং মেধাবীদের পুলিশে স্বাগত জানিয়েছেন বরিশাল বিভাগের ডিআইজি  এসএম আক্তারুজ্জামা। তিনি নতুন নিয়োগ পাওয়া সবার মঙ্গল কামনা করেন।  

উত্তীর্ণ হলেও ভূমিহীন হওয়ায় নিয়োগ দেয়া হবে না ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তহে আসপিয়াকে জানিয়ে দিয়েছিলো পুলিশ। নিউজ টোয়েন্টিফোরে এ সংক্রান্ত খবরের প্রেক্ষিতে আসপিয়াকে ঘর এবং চাকরি দেয়ার নির্দেশ দেয় প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়। ঘর হস্তান্তর হবে মধ্য জানুয়ারীতে।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি