কুমিল্লায় ভোটের একদিন আগে ২৯ ককটেল জব্দ

জব্দ করা বিস্ফোরক, অস্ত্র ও অন্যান্য সরঞ্জাম, ছবি: নতুন যুগ
সর্বমোট পঠিত : 51 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেন জানান, ২৬ ডিসেম্বর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সহিংসতা করার উদ্দেশে এসব ককটেল ও অস্ত্র মজুদ করা হয়েছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে। শনিবার বিকেলে গ্রেপ্তারদের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি মডেল থানায় অস্ত্র ও বিস্ফোরক আইনে মামলা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

কুমিল্লায় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের একদিন আগে ২৯টি ককটেল, বোমা তৈরির সরঞ্জাম ও দেশিয় অস্ত্র জব্দ করা হয়েছে। এ ঘটনায় সাতজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

জেলার আদর্শ সদর উপজেলার পাঁচথুবী ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী গোলাবাড়ি এলাকা থেকে এসব বিস্ফোরক ও অস্ত্র জব্দ করা হয়। শনিবার বিকালে র‌্যাব-১১, সিপিসি-২ কুমিল্লা ক্যাম্পের অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেন সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন ঘিরে সহিংসতা করতে এসব বিস্ফোরক ও অস্ত্র তৈরি ও সংগ্রহ করা হয়েছিল বলে ধারণা করছেন তিনি। রোববার (২৬ ডিসেম্বর) এ ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। অর্থাৎ ভোটের একদিন আগে এসব অস্ত্র জব্দ করা হয়েছে।

র‌্যাব সূত্রে জানা যায়, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাবের একটি দল গোলাবাড়ি এলাকায় অভিযান চালায়। এসময় ২৯টি ককটেল, সাতটি রামদা, একটি চাইনিজ কুড়াল, বোমা তৈরির বিপুল পরিমাণ সরঞ্জামাদিসহ সাতজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার সাতজন তারা হলেন, আদর্শ সদর উপজেলার কাঁটাবিল এলাকার উজির মিয়ার ছেলে মো. হৃদয় (২২), দৌলতপুর এলাকার মো. মোজাফ্ফরের ছেলে মো. রিপন (২৮), চাঁনপুর এলাকার মৃত বাদল মিয়ার ছেলে মো. রবিউল ইসলাম (২৭), মুরাদপুর এলাকার হাসান মিয়ার ছেলে মো. জুয়েল (২৫), ঢুলিপাড়া এলাকার সিরাজ মিয়ার ছেলে মো. রুবেল (২৬), কাপ্তান বাজারের বাবুল মিয়ার ছেলে ফজলুর রাব্বি (২৪) ও বুড়িচং উপজেলার বুড়বুড়িয়া গ্রামের আবদুল জলিলের ছেলে মাহমুদ উল্লাহ (২৩)।

মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেন জানান, ২৬ ডিসেম্বর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সহিংসতা করার উদ্দেশে এসব ককটেল ও অস্ত্র মজুদ করা হয়েছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে। শনিবার বিকেলে গ্রেপ্তারদের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি মডেল থানায় অস্ত্র ও বিস্ফোরক আইনে মামলা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি