কেন্দ্র থেকে বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের এজেন্ট বের করে দেয়ার ঘোষনা নালিতাবাড়ী পৌর মেয়রের

কেন্দ্র থেকে বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের এজেন্ট বের করে দেয়ার ঘোষনা নালিতাবাড়ী পৌর মেয়রের
সর্বমোট পঠিত : 922 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

এদিকে নালিতাবাড়ী পৌরসভার মেয়র ও শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মো: আবু বকর প্রকাশ্যে জনসভায় ঘোষনা করেছেন, বাঘবেড় ইউনিয়নের বিদ্রোহী প্রার্থী হাফিজুর রহমান খোকনের কোন নির্বাচনী কেন্দ্র থাকবেনা, নির্বাচনের দিন বিদ্রোহীদের কোন এজেন্ট কেন্দ্রে থাকবেনা বলে হুমকি দিয়েছেন।

আগামী ২৮ নভেম্বর তৃতীয় ধাপে অনুষ্ঠেয় শেরপুরের নালিতাবাড়ীর ১২ ও নকলা উপজেলার ৯টিসহ ২১টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের শেষ মূহুর্তে এসে আওয়ামীলীগ আর বিদ্রোহী প্রার্থীদের পাল্টা-পাল্টি অভিযোগে উত্তাপ ছড়াচ্ছে। আবার নালিতাবাড়ী পৌরসভার মেয়রের বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি বিদ্রোহী প্রার্থীদের হুমকি প্রদান ও কেন্দ্রে নৌকা ছাড়া অন্যদের এজেন্ট থাকতে পারবে না এ ঘোষনায় শঙ্কায় আছে প্রার্থী ও ভোটারগণ। আবার শেষ মূহুর্তে ব্যতিক্রমী প্রচারনায় ব্যস্ত প্রার্থীরা। প্রশাসন বলছে নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে জিরো টলারেন্সে থাকবে তারা।

শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার ১২টি ও নকলা উপজেলার ৯টিসহ মোট ২১ ইউনিয়নে ব্যালটের রায় হবে আগামী ২৮ নভেম্বর। এর মধ্যে নালিতাবাড়ীর নন্নী ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের বেলায়েত হোসেন চৌধুরী বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হওয়ায় ২০ টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ভোট লড়ছেন ৬৭জন। এর মধ্যে আওয়ামীলীগের মনোনীত ২জন নারীসহ ২০ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী, বাকীদের মধ্যে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী ৪২ জন বাকী ৫ জন বিএনপি বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী। ২১ ইউনিয়নে সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ২২৩ ও সাধারণ সদস্য পদে ৬৩০ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বী করছেন। নির্বাচনে এতোদিন প্রার্থীরা জমজমাট প্রচারনা চালিয়ে গেলেও শেষ মূহুর্তে এসে নৌকার ২০ প্রার্থীর বিরুদ্ধে হুমকি ও ভোট কারচুপি করার অভিযোগ করছেন বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। এর মধ্যে নালিতাবাড়ীর বাঘবেড়, রাজনগর, নয়াবিল, কলসপাড়, পোড়া গাও, নকলার গনপদ্দি, বানেশ্বরদী ও চন্দ্রকোনাসহ বিভিন্ন ইউনিয়নে ভোট কারচুপির আশঙ্কা করা হচ্ছে বেশী।

এদিকে নালিতাবাড়ী পৌরসভার মেয়র ও শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মো: আবু বকর প্রকাশ্যে জনসভায় ঘোষনা করেছেন, বাঘবেড় ইউনিয়নের বিদ্রোহী প্রার্থী হাফিজুর রহমান খোকনের কোন নির্বাচনী কেন্দ্র থাকবেনা, নির্বাচনের দিন বিদ্রোহীদের কোন এজেন্ট কেন্দ্রে থাকবেনা বলে হুমকি দিয়েছেন।

এব্যাপারে ওই ইউনিয়নের বিদ্রোহী প্রার্থী মো: হাফিজুর রহমান খোকন বলেন, নিয়ম বহির্ভূতভাবে পৌর মেয়র বাক্কার সাহেব আমার বিরুদ্ধে হুমকি দিচ্ছেন। কেন্দ্র থেকে আমার এজেন্ট বের করে দেয়ার ঘোষনাও দিয়েছেন। তাদের নেতা কর্মীরাও আমার ওপর হামলার হুমকি দিচ্ছেন। এতে আতঙ্কের মধ্যে আছি। ভয়ে আমি ভোটের প্রচারেও যেতে পারছি না। আমি প্রশাসনের কাছে এ বিষয়ে অভিযোগ করেছি।   
 
অবশ্য নালিতাবাড়ী পৌর মেয়র এ অভিযোগ অস্বীকার করে পাল্টা অভিযোগ করে বলেছেন বিদ্রোহী প্রার্থীর বাড়ীতেই লাঠিসোটা আছে। আমরা সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সবধরনের সহযোগিতা করবো। আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী মো: আব্দুস সবুর বলেন, জনপ্রিয় মেয়র কোন হুমকি দেননি।      
কিন্তু ফেইসবুকে ভাইরাল হওয়া পৌর মেয়রের বক্তব্যে পাওয়া যায় হুমকি ও এজেন্ট বের করে দেয়ার ঘোষনার প্রমান। এতে ওই ইউনিয়নের জনগনও আছে তাদের ভোট নিয়ে শঙ্কায়।    
তবে পুলিশের ডিআইজি ব্যারিস্টার মো: হারুন অর রশিদ বলেন, আমরা সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য কারো মুখ দেখে বা কাউকে চিনে দায়িত্ব পালন করবোনা। কেউ নির্বাচনে কারচুপির চিন্তা করলে চরম ভূল করবেন। কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। সাবধান হয়ে যান, বিশৃঙ্খলা করলে পালানোর সুযোগ পাবেননা।    


মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি