প্রতিপক্ষের ষড়যন্ত্রে কান না দেয়ার আহ্বান

বগুড়া মাদলায় হাজারো মানুষের ভালবাসায় সিক্ত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আতিকুর রহমান

হাজারো মানুষের ভালবাসায় সিক্ত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আতিকুর রহমান
সর্বমোট পঠিত : 47 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

এদিকে মুঠোফোনে ঘোড়া মার্কার প্রার্থী আতিকের সাথে কথা বললে তিনি জানান, অত্র ইউনিয়নের উন্নয়নে তার সাধ্যমত বিগত ৫ বছরে তিনি যথাসাধ্য কাজ করে গেছেন। উন্নয়নের এই ধারা অব্যাহত রাখতে তিনি ভোটারসহ সকলের দোয়া কামনা করেছেন। এছাড়াও তিনি বলেন, নির্বাচনে পক্ষ ও বিপক্ষ দল থাকবেই সেগুলো নিয়ে তিনি চিন্তিত নয়। তিনি শুধু দিনশেষে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার লক্ষ্যে প্রশাসনের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেছেন।

আসন্ন ২৮শে নভেম্বর বগুড়ায় ২নং মাদলা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন কে সামনে রেখে জমে উঠেছে শেষ সময়ের নির্বাচনী প্রচারণা। মেম্বার থেকে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সবাই ছুটে চলেছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে কিন্তু এরই মাঝেই বিগত ৫ বছরে এলাকায় চেয়ারম্যান থাকাকালীন নিজের করা ইতিবাচক উন্নয়নমূলক কাজের জন্যে নির্বাচনী প্রচারণায় সকল স্থানেই হাজারো মানুষের ভালবাসায় সিক্ত হচ্ছেন চেয়ারম্যান পদে ঘোড়া মার্কার প্রার্থী মো: আতিকুর রহমান (আতিক)।

সোমবার দিনব্যাপী মাদলা ইউনিয়নের লক্ষীকোলায় আতিক চেয়ারম্যান প্রচারণায় গেলে শত শত মানুষ নিজে থেকেই তার হয়ে ভোট প্রার্থণা করেন গ্রামের সাধারণ মানুষের কাছে যেখানে মা-বোনের সংখ্যাও অনেক। শুধু তাই নয় দীর্ঘ বছর ধরে যাদের বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতাসহ সরকারের নানা সুবিধা থেকে যারা বঞ্চিত ছিল তাদেরকে বিগত ৫ বছরে চেয়ারম্যান আতিক পর্যায়ক্রমে করে দিয়েছেন ভাতাকার্ড যার সংখ্যা সহস্রাধিক তাই এলাকার বয়স্ক, মুরুব্বী ও সম্মানিত মানুষগুলো নিজে থেকেই ছুটে এসে আতিকুর রহমানের মাথায় হাত দিয়ে বিজয়ের লক্ষ্যে দোয়া করছেন যে দৃশ্যগুলো সত্যিই বলে দেয় জনপ্রতিনিধি হলে তো এমনই হতে হবে। গ্রামের একজন ভোটার স্থানীয় একজন স্কুল শিক্ষকের সাথে কথা হলে তিনি  জানান, মাদলার মানুষের দীর্ঘদিনের চাওয়া দড়িনন্দ গ্রামের ৩কি.মি রাস্তার কার্পেটিং এর কাজ তিনি করে দিয়েছেন যার আগের অবস্থা একদম বেহাল ছিল। শুধু তাই নয় মাদলার ৮টি উল্লেখযোগ্য রাস্তা যথাক্রমে শশ্মানকান্দি, শুরিমারা, লক্ষিকোলা, কাজীপাড়া থেকে বলদীপালান, রামচন্দ্রপুর থেকে শশ্মানকান্দি, নিশ্চিন্তপুর থেকে নন্দগ্রাম, শেরকোল থেকে খোট্টাপাড়া, মালিপাড়া থেকে শেরকোল রাস্তার কাপের্টিং কাজ, শেরকোল এলাকায় ২টি, চাঁচাইতারাতে ১টি, দড়িনন্দগ্রামে ১টি ব্রিজসহ অর্ধশতাধিক কালভার্ট নির্মাণ ও প্রায় শতাধিক ড্রেনের সংস্কারকরণ কাজ করেছেন আতিক চেয়ারম্যান যার সুফল ভোগ করছেন গ্রামের হাজারো মানুষ। তিনি পুনরায় বিজয়ী হলে মাদলার একটি রাস্তাও কাঁচা থাকবে না এবং সারাদেশের মাঝে মাদলা ইউপি একটি আইডল ইউনিয়ন হবে মর্মে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি।
এদিকে জনপ্রিয় এই প্রার্থীর সমর্থকরা বলেন, আতিক চেয়ারম্যান কেমন মানুষ তা গ্রামের সবাই জানে। তাই তার পুনরায় জয় নিশ্চিত জেনে প্রতিপক্ষের লোকেরা নানা ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় এডিট করা নানা ছবি ভাইরাল করাসহ নানা অপপ্রচার করা হচ্ছে অত্র ইউনিয়নের সর্বোচ্চ স্বার্থে সদা কাজ করে আসা চেয়ারম্যান আতিকের বিরুদ্ধে। এসব অপপ্রচারে কান না দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

এদিকে মুঠোফোনে ঘোড়া মার্কার প্রার্থী আতিকের সাথে কথা বললে তিনি জানান, অত্র ইউনিয়নের উন্নয়নে তার সাধ্যমত বিগত ৫ বছরে তিনি যথাসাধ্য কাজ করে গেছেন। উন্নয়নের এই ধারা অব্যাহত রাখতে তিনি ভোটারসহ সকলের দোয়া কামনা করেছেন। এছাড়াও তিনি বলেন, নির্বাচনে পক্ষ ও বিপক্ষ দল থাকবেই সেগুলো নিয়ে তিনি চিন্তিত নয়। তিনি শুধু দিনশেষে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার লক্ষ্যে প্রশাসনের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেছেন।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি