শেরপুরের আ.লীগ নেতা বদিউজ্জামান বাদশার মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীসহ বিভিন্ন মহলের শোক

শেরপুরের আ.লীগ নেতা বদিউজ্জামান বাদশার মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীসহ বিভিন্ন মহলের শোক
সর্বমোট পঠিত : 127 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

উল্লেখ্য, সোমবার রাত পৌণে ৩টার দিকে রাজধানী ঢাকার বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে মারা যান বদিউজ্জামান বাদশা। তিনি লিভার ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন। বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক ও ব্যক্তি জীবনে বদিউজ্জামান বাদশা ছিলেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহসভাপতি, নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ কৃষক লীগের সাবেক সহসভাপতি, বাংলাদেশ উপজেলা চেয়ারম্যান ফোরামের সাবেক মহাসচিব, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা উপকমিটির সদস্য, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক। তিনি এরশাদবিরোধী আন্দোলনের ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রসংগ্রাম পরিষদের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।

আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা উপকমিটির সদস্য, কেন্দ্রীয় কৃষকলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান কৃষিবিদ বদিউজ্জামান বাদশার মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রী, আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনাসহ বিভিন্ন মহল গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সোমবার এক শোক বার্তায় মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন এবং তার শোক-সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

এছাড়া বদিউজ্জামান বাদশার মৃত্যুতে আরও শোক প্রকাশ করেছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক, সাবেক কৃষিমন্ত্রী, শেরপুর-২ (নকলা-নালিতাবাড়ী) আসনের সংসদ সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী, জাতীয় সংসদের হুইপ, শেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, বীর মুক্তিযোদ্ধা আতিউর রহমান আতিক এমপি, শেরপুর-৩ (শ্রীবরদী-ঝিনাইগাতী) আসনের সংসদ সদস্য প্রকৌশলী একেএম ফজলুল হক চাঁন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট চন্দন কুমার পাল পিপি, শেরপুর পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া লিটন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম, নালিতাবাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান মোকছেদুর রহমান লেবু, ঝিনাইগাতী উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম আব্দুল্লাহেল ওয়ারেজ নাইম, শ্রীবরদী উপজেলা চেয়ারম্যান এডিএম শহিদুল ইসলাম, নালিতাবাড়ী পৌরসভার মেয়র আবু বক্কর সিদ্দিক বাক্কার, জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের সাবেক কমান্ডার নুরুল ইসলাম হিরু, শেরপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি শরিফুর রহমান, সাবেক সভাপতি রফিকুল ইসলাম আধার, সাধারণ সম্পাদক মেরাজ উদ্দিন, জেলা ফুটবল  এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মানিক দত্ত, ইদ্রিস এন্ড কোম্পানী (প্রাঃ) লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গুলজার মোহাম্মদ ইয়াহ-ইয়া জিহান প্রমুখ।

বদিউজ্জামান বাদশার প্রথম জানাজা রাজধানী ঢাকার মোহাম্মদপুর এলাকার বাসভবনে সকাল সাড়ে ৭টায়, দ্বিতীয় জানাজা ঢাকার ফার্মগেট খামারবাড়ির কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট চত্বরে সকাল সাড়ে ৯টার এবং তৃতীয় জানাজা বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে বেলা দেড়টার অনুষ্ঠিত হয়। সর্বশেষ চতুর্থ জানাজা শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার সরকারি তারাগঞ্জ পাইলট উচ্চবিদ্যালয় মাঠে বাদ মাগরিব অনুষ্ঠিত হয়েছে। তিনি স্ত্রী, দুই সন্তানসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

উল্লেখ্য, সোমবার রাত পৌণে ৩টার দিকে রাজধানী ঢাকার বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে মারা যান বদিউজ্জামান বাদশা। তিনি লিভার ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন। বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক ও ব্যক্তি জীবনে বদিউজ্জামান বাদশা ছিলেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহসভাপতি, নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ কৃষক লীগের সাবেক সহসভাপতি, বাংলাদেশ উপজেলা চেয়ারম্যান ফোরামের সাবেক মহাসচিব, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা উপকমিটির সদস্য, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক। তিনি এরশাদবিরোধী আন্দোলনের ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রসংগ্রাম পরিষদের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি