ট্রাব আজীবন সম্মাননা পেলেন নঈম নিজাম

ট্রাব আজীবন সম্মাননা পেলেন নঈম নিজাম
সর্বমোট পঠিত : 32 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলো- শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র "বিশ্বসুন্দরী, শ্রেষ্ঠ পরিচালক চয়নিকা চৌধুরী, শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী পরীমণি, শ্রেষ্ঠ অভিনেতা সিয়াম, শ্রেষ্ঠ প্লেব্যাক সিঙ্গার (পুরুষ) ইমরান, শ্রেষ্ঠ প্লেব্যাক (নারী) দিলশাদ নাহার কনা। "টুঙ্গীপাড়ার মিঞা ভাই" চলচ্চিত্রের জন্য বিশেষ সম্মাননা পেয়েছেন প্রযোজক সেলিম খান, পরিচালক শামীম আহমেদ রনি, ইফতেখার চৌধুরী, শাহীন সুমন। টকশো "কথায় কথায়" এর জন্য বিশেষ সম্মাননা পেলেন তাশিক আহমেদ। শ্রেষ্ঠ নাট্যাভিনেতার পুরস্কার পেয়েছেন জাহিদ হাসান, রাশেদ সীমান্ত, পরিচালনায় সালাহউদ্দিন লাভলু, অভিনেত্রী মেহজাবিন চৌধুরী।

টেলিভিশন রিপোর্টার্স ইউনিটি অব বাংলাদেশ (ট্রাব) অ্যাওয়ার্ড ২০২১-এ সাংবাদিকতায় আজীবন সম্মাননা পেলেন বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজাম। প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ তাকে এই সম্মাননা প্রদান করে ট্রাব।

শুক্রবার সন্ধ্যায় ঢাকা ক্লাবের স্যামসন এইচ চৌধুরী মিলনায়তনে নঈম নিজামের হাতে এই সম্মাননা তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। এছাড়া চ্যানেল আইয়ের পরিচালক মুকিত মজুমদার, নিরাপদ সড়ক চাই-এর চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন, অভিনেতা মাহমুদ সাজ্জাদ (মরণোত্তর) ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. হামিদা খানমকেও আজীবন সম্মাননা ​প্রদান করা হয়।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আজ যারা এই পুরস্কার পেয়েছেন তারা প্রত্যেকেই নিজ নিজ অঙ্গনে সুপরিচিত ও যোগ্য। পুরস্কারপ্রাপ্ত সকলকে অভিনন্দন।
 
সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড নিয়ে বিভিন্ন জনের সমালোচনার প্রসঙ্গ টেনে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড যারা সমালোচনা করে তাদেরও প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। কারণ তাদের সমালোচনার মাধ্যমেই যে কোন কাজ নিখুঁতভাবে সম্পন্ন হয়। সমালোচকদের উদ্দেশ্যে বলবো সঠিক ও গঠনমূলক সমালোচনাই করুন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। মনোজ্ঞ এই আয়োজনে সংগীত ও নৃত্য পরিবেশন করেন প্রতিশ্রুতিশীল শিল্পীরা।

অনুষ্ঠানে বিশেষ সম্মাননা পুরস্কার প্রদান করা হয় এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান ড. মাহফুজুর রহমান, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে। চিন্ময় মুৎসুদ্দীকে আহমেদ জামান চৌধুরী স্মৃতি পুরস্কার ও সৈয়দ শামসুল হক স্মৃতি পুরস্কার পেলেন নাট্যজন আতাউর রহমান। এছাড়া চলচ্চিত্র, টেলিভিশন, নৃত্য, সংগীত ও মঞ্চসহ সংস্কৃতির বিভিন্ন অঙ্গনের বিভিন্নজনকেও এই পুরস্কার প্রদান করা হয়।

পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলো- শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র "বিশ্বসুন্দরী, শ্রেষ্ঠ পরিচালক চয়নিকা চৌধুরী, শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী পরীমণি, শ্রেষ্ঠ অভিনেতা সিয়াম, শ্রেষ্ঠ প্লেব্যাক সিঙ্গার (পুরুষ) ইমরান, শ্রেষ্ঠ প্লেব্যাক (নারী) দিলশাদ নাহার কনা। "টুঙ্গীপাড়ার মিঞা ভাই" চলচ্চিত্রের জন্য বিশেষ সম্মাননা পেয়েছেন প্রযোজক সেলিম খান, পরিচালক শামীম আহমেদ রনি, ইফতেখার চৌধুরী, শাহীন সুমন। টকশো "কথায় কথায়" এর জন্য বিশেষ সম্মাননা পেলেন তাশিক আহমেদ। শ্রেষ্ঠ নাট্যাভিনেতার পুরস্কার পেয়েছেন জাহিদ হাসান, রাশেদ সীমান্ত, পরিচালনায় সালাহউদ্দিন লাভলু, অভিনেত্রী মেহজাবিন চৌধুরী।

শ্রেষ্ঠ সংগীত শিল্পী আঁখি আলমগীর ও আসিফ আকবর। শ্রেষ্ঠ মঞ্চ নাটক "দ্রৌপদী পরম্পরা" শ্রেষ্ঠ মঞ্চাভিনেতা সেলিম মাহবুব, শ্রেষ্ঠ মঞ্চাভিনেত্রী তনিমা হামিদ, শ্রেষ্ঠ নির্দেশক অধ্যাপক মলয় ভৌমিক। অনুষ্ঠানে প্রায় ৭৫ জন নির্বাচিতদের হাতে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে পুরস্কার তুলে দেন ট্রাব নেতারা। 

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি