মোংলা বন্দরে ৬ কোটি টাকার বিদেশী মদ জব্দ

মোংলা বন্দরে ৬ কোটি টাকার বিদেশী মদ জব্দ
সর্বমোট পঠিত : 106 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

মোংলা কাস্টমস হাউজের কমিশনার মোহাম্মদ হোসেন আহমেদ বলেন,মঙ্গলবার দুপুরে পণ্যভর্তি কন্টেইনারের কায়িক পরীক্ষণের সময় বিপুল পরিমাণ মদ পাওয়া যায়। কিন্তু মদের পরিবর্তে ওই কন্টেইনারে চুনা পাথর (কুইক লাইম) আসার কথা ছিল। সংশ্লিষ্ট আমদানিকারক ফাহাদ ট্রেডিং মিথ্যা ঘোষণা ও শুল্ক ফাঁকি দিয়ে মোংলা বন্দরে এ চালান এনেছে বলেও জানান কমিশনার।

মোংলা বন্দরে মিথ্যা ঘোষণায় আমদানী করা বিদেশি মদের চালান আটক করেছে কাষ্টমস কর্তৃপক্ষ।  মঙ্গলবার ১৬ নভেম্বর দুপুরে বন্দরের ২ নং ইয়ার্ডে মোংলা কাস্টমস হাউজের শুল্ক গোয়েন্দা পরিক্ষা নিরিক্ষায় সময এগুলে জব্দ করে।

মোংলা কাস্টমস হাউজের কমিশনার মোহাম্মদ হোসেন আহমেদ বলেন,মঙ্গলবার দুপুরে পণ্যভর্তি কন্টেইনারের কায়িক পরীক্ষণের সময় বিপুল পরিমাণ মদ পাওয়া যায়। কিন্তু মদের পরিবর্তে ওই কন্টেইনারে চুনা পাথর (কুইক লাইম) আসার কথা ছিল। সংশ্লিষ্ট আমদানিকারক ফাহাদ ট্রেডিং মিথ্যা ঘোষণা ও শুল্ক ফাঁকি দিয়ে মোংলা বন্দরে এ চালান এনেছে বলেও জানান কমিশনার।

তিনি আরও বলেন, গত মার্চ মাসে সিঙ্গাপুর পতাকাবাহী এমভি কোটারিয়া জাহাজ মোংলা বন্দরে কন্টেইনার নিয়ে আসে। ওই আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান বন্দর জেটিতে আনা কন্টেইনারভর্তি মাল ছাড় না করাতে বন্দরের ট্রাফিক বিভাগ থেকে ওই কন্টেইনারের মালামাল নিলামে তোলার জন্য কাস্টমকে চিঠি দেয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ ওই কন্টেইনারের পণ্য ইনভেন্টরি করার উদ্দেশে মঙ্গলবার খুললে এর মধ্যে চুনা পাথরের পরিবর্তে ৮৪২ কার্টন মদ পাওয়া যায়। প্রতি কার্টুনে ১২টি করে বোতল রযেছে, যার মধ্যে মোট ১০ হাজার ১০৪ বোতল মদ রযেছে। যার  আনুমানিক বাজার মুল্য প্রায় ৬ কোটি কাটা বলে জানায় কাস্টমস কর্তৃপক্ষ।

এদিকে, এখন পর্যন্ত এঘটনায় কাউকে আটক করা যায়নি। আজ মঙ্গলবার দুপুরে মদের চালান উদ্ধারের সময় বন্দর জেটিতে মোংলা কাস্টমস কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তা, মোংলা থানা পুলিশ, গোয়েন্দা বিভাগ ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি