বাকৃবি দীর্ঘ দেড় বছর পর খুলছে, ডেঙ্গু মোকাবেলায় পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে ক্যাম্পাস

বাকৃবি দীর্ঘ দেড় বছর পর খুলছে, ডেঙ্গু মোকাবেলায় পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে ক্যাম্পাস
সর্বমোট পঠিত : 15 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি ছিল শতভাগ। প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে পরীক্ষা হলে মাস্ক পরে ঢোকানো হয়। যাদের মাস্ক নাই তাদের জন্যও পর্যাপ্ত পরিমাণ মাস্কের ব্যবস্থা রাখা হয়। অন্যদিকে শিক্ষার্থীদের স্যানিটাইজার ব্যবহার করে পরীক্ষা হলে ঢোকার ব্যবস্থা রাখা হয়। স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষার্থীদের এক সিট পর পর আসনের ব্যবস্থা করা হয়।

দীর্ঘ দেড় বছর পর স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) খুলছে। (২৭ সেপ্টেম্বর) সোমবার সকাল ১০ টায় বিভিন্ন অনুষদের (কৃষি, পশুপালন, মাৎস্যবিজ্ঞান) শেষ বর্ষের শিক্ষার্থীদের সশরীরে স্নাতক চতুর্থ বর্ষের ফাইনাল পরীক্ষাশুরু হয়েছে। এর আগে ২৪ সেপ্টেম্বর হলগুলো খুলে দেয়া হয়েছে। দীর্ঘদিন বিশ্ববিদ্যালয় ও হল সমূহ বন্ধ থাকায় আশপাশে অনেক আগাছার জন্ম নেয়। এডিস মশা ও ডেঙ্গু মোকাবেলায় হলগুলোর পূর্বের পুরো ক্যাম্পাসের আগাছাগুলো কেচে পরিষ্কার করা হয়েছে। এবং ফগার মেশিন দিয়ে ও মশা নিধন ওষুধ ছিটিয়ে মশা মারা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন বাকৃবি ছাত্র বিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. একেএম জাকির হোসেন।

ছাত্র বিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. একেএম জাকির হোসেন আরো জানান উপাচার্য অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসানের নির্দেশে ক্যাম্পাসে ডেঙ্গুর বংশ বিস্তার রোধে প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থাই নেয়া হয়েছে। ক্যাম্পাসে করোনা মোকাবেলাতে স্বাস্থ্যবিধি মানার জন্য শিক্ষক-শিক্ষার্থী এবং কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের কড়া নির্দেশ দিয়েছেন বাকৃবি উপাচার্য। সে অনুযায়ী বাস্তবায়ণকারী সংস্থাগুলো প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি ছিল শতভাগ। প্রত্যেক  শিক্ষার্থীকে পরীক্ষা হলে মাস্ক পরে ঢোকানো হয়। যাদের মাস্ক নাই তাদের জন্যও পর্যাপ্ত পরিমাণ মাস্কের ব্যবস্থা রাখা হয়। অন্যদিকে শিক্ষার্থীদের স্যানিটাইজার ব্যবহার করে পরীক্ষা হলে ঢোকার ব্যবস্থা রাখা হয়। স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষার্থীদের এক সিট পর পর আসনের ব্যবস্থা করা হয়।

বাকৃবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে আমরা শেষ বর্ষের  শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা শুরু করতে পেরেছি। আমরা অন্য সকল বর্ষের শিক্ষার্থীদের জন্য ৩ অক্টোবর থেকে হল খুলে দিবো। এক্ষেত্রে যারা  অন্তত ১ম ডোজের টিকা গ্রহণ করেছে তারাই কেবল হলে উঠার সুযোগ পাবে। ৩য় বর্ষের পরীক্ষা শুরু করা হবে আগামী ১৭ অক্টোবর থেকে এবং ৪-১০ অক্টোবরের মধ্যে শেষ করা হবে সকল ব্যবহারিক ক্লাস। অন্যদিকে মাস্টার্সের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা শেষ হলে করোনা ভাইরাসের গতিবিধি বিবেচনা করে আমরা সশরীরে ক্লাস শুরু করবো। বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন কাউন্সিলের আহবায়ক, প্রক্টর এবং ছাত্রবিষয়ক উপদেষ্টাসহ সকলের সহযোগিতায় আমরা সকল বিষয় অত্যন্ত সুন্দরভাবে সম্পন্ন করতে পারেবো বলে আশা করছি।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি