নকলায় নাম জালিয়াতি করে প্রাইমারী স্কুলের দপ্তরী পদে চাকরি

জালিয়াতি
সর্বমোট পঠিত : 135 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

ভুয়া পরিচয়দানকারী মো. আবুল খায়েরের প্রকৃত নাম মো. খাইরুল ইসলাম, যা তাঁর জন্ম নিবন্ধন সনদ, কাবিননামা, স্কুল প্রত্যয়ন পত্র, জমির দলিলসহ বিভিন্ন কাগজপত্রে উল্লেখ রয়েছে।

আবু হানিফ, স্টাফ রিপোর্টার:
ভুয়া তথ্য সরবরাহের মাধ্যমে শেরপুর জেলার নকলা উপজেলার লাভা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী কাম প্রহরী পদে দীর্ঘ সাত বছর যাবত মো. আবুল খায়ের অবৈধভাবে চাকরি করে আসছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরে অভিযোগপত্র প্রদান করা হয়েছে।

অভিযোগপত্র ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, নকলা উপজেলার লাভা গ্রামের মো. আব্দুল মান্নানের ছেলে মো. খাইরুল ইসলাম প্রকৃত নাম আড়াল করে নিজেকে মৃত দেখিয়ে মো. আবুল খায়ের নাম ধারণ করে। বয়স কমিয়ে অসদোপায় অবলম্বনের মাধ্যমে লাভা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২০১৪ সালে ফেব্রুয়ারী মাসে দপ্তরী কাম প্রহরী পদে চাকরি গ্রহণ করে। ভুয়া পরিচয়দানকারী মো. আবুল খায়েরের প্রকৃত নাম মো. খাইরুল ইসলাম, যা তাঁর জন্ম নিবন্ধন সনদ, কাবিননামা, স্কুল প্রত্যয়ন পত্র, জমির দলিলসহ বিভিন্ন কাগজপত্রে উল্লেখ রয়েছে।

উল্লেখ্য, অন্যান্য যোগ্য প্রার্থী থাকা সত্তে¦ও মিথ্যা, ভুয়া তথ্য ও জাল কাগজপত্র প্রদানকারীকে ওই পদে কেন নিয়োগ দেয়া হলো তা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। এ ব্যাপারে সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে ভুয়া পরিচয়দানকারী আবুল খায়েরসহ অন্যান্য দোষী ব্যক্তিদের বিচার দাবী করেছেন অন্যান্য প্রার্থী এবং এলাকাবাসী।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি