করোনাকালে বেড়েছে বাল্যবিয়ের হার

বাল্যবিয়ে
সর্বমোট পঠিত : 78 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

কুড়িগ্রাম সদরের সারডোব আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী নার্গিস। দীর্ঘদিন পর স্কুলে এসেও মন ভার। প্রিয় সহপাঠি ছাড়া এক মূহুর্তেও মন বসছে ক্লাসে। পরে জানা যায়, তারা ৯ জন বান্ধবি ছিলো। খুনসুটি হাসি আড্ডায় লেখাপড়ার দিন পার হতো। কিন্তু করোনার বন্ধে ৮ জনেরই বিয়ে হয়ে গেছে।

করোনাকালে কুড়িগ্রামে বেড়েছে বাল্যবিয়ে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার পর বাস্তবতা যেন ''চক্ষু চড়ক গাছ"। ছাত্র-ছাত্রীর উপস্থিতি কমেছে অনেক স্কুলেই। জেলা শিক্ষা অফিসের তথ্য বলছে, করোনাকালে মাত্র ১০টি স্কুলে বাল্যবিয়ের সংখ্যাই ২০৩ টি।

কুড়িগ্রাম সদরের সারডোব আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী নার্গিস। দীর্ঘদিন পর স্কুলে এসেও মন ভার। প্রিয় সহপাঠি ছাড়া এক মূহুর্তেও মন বসছে ক্লাসে। পরে জানা যায়, তারা ৯ জন বান্ধবি ছিলো। খুনসুটি হাসি আড্ডায় লেখাপড়ার দিন পার হতো। কিন্তু করোনার বন্ধে ৮ জনেরই বিয়ে হয়ে গেছে।

খোঁজ নিয়ে মিলেছে করোনাকালে বাল্যবিয়ের বলি হয়েছেন অনেকেই। এই যেমন কাঁঠালবাড়ি দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ২৪ জন ছাত্রীরও বিয়ে হয়ে গেছে।

এতে স্কুল খোলার পর কমেছে শিক্ষার্থী উপস্থিতি। শিক্ষকরা বলছেন, করোনাকালে শিক্ষার্থীদের সাথে যোগাযোগ কম থাকায় বাল্যবিয়ে ঠেকানো সম্ভব হয়নি।

আর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মেহেবুব হাসান বলছেন, সকল প্রতিষ্ঠানকে বাল্যবিয়ে সম্পর্কে তথ্য পাঠাতে এরই মধ্যে বলা হয়েছে।

বেসরকারি একটি সংস্থার তথ্যে, গত বছরের মার্চ থেকে চলতি বছরের আগষ্ট পর্যন্ত জেলায় বাল্যবিয়ে হয়েছে ৬০৯টি।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি