গরুর সাক্ষ্য

সাক্ষ্য দিতে থানার সামনে গরু

সাক্ষ্য দিতে থানার সামনে গরু
সর্বমোট পঠিত : 15 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে সাক্ষ্য দেবে গরু। থানা প্রাঙ্গণে ছোট খুঁটিতে তাই তাকে বাঁধা হয়েছে। তার সামনে খাওয়ার জন্য পানি ও ঘাস রাখা। পাশে দাঁড়িয়ে হতভম্ব পুলিশ কর্মকর্তা। ভারতের হরিয়ানা রাজ্যের ফতেহাবাদ জেলায় রোববার এ বিচিত্র ঘটনা ঘটেছে। এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, ফতেহাবাদের তোহানা শহরে বিধায়কের বাড়ি ঘেরাও করার অপরাধে দুই কৃষককে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর সাথিদের মুক্তির দাবিতে থানার বাইরে অবস্থান নেন আন্দোলনে নামা কৃষকেরা। তাদের সঙ্গে ছিল গরুটিও। কৃষকদের ভাষ্য, ওই গরু দুই কৃষককে গ্রেপ্তারের ঘটনা প্রত্যক্ষ করার ৪১তম সাক্ষী।

গ্রেপ্তার কৃষকদের মুক্তির দাবিতে হরিয়ানাজুড়ে থানা ঘেরাওয়ের কর্মসূচি দেয় সংযুক্ত কিষান মোর্চা। তবে রোববার রাতের দিকে জামিনে দুই কৃষককে মুক্তি দেয়ায় তা বাতিল করা হয়। অবশ্য তোহানায় আন্দোলন জারি থাকবে বলে জানান তারা।


কৃষকদের পক্ষ থেকে বলা হয়, গরুটিকে খাবার ও পানি খাওয়ানোর দায়িত্ব পুলিশ কর্মকর্তাদের।


আন্দোলনরত কৃষকদের একজন বলেন, ‘দেশের বর্তমান সরকার নিজেদের গরু পূজারি বা গরুপ্রেমী হিসেবে দাবি করে। পবিত্র প্রাণীটিকে প্রতীক হিসেবে আমরা থানায় এনেছি। গরুটির উপস্থিতি সরকারের কর্তাব্যক্তিদের মধ্যে শুভবুদ্ধির উদয় ঘটাতে পারে।’


ফতেহাবাদের তোহানা শহরে থানার বাইরে অবস্থান ধর্মঘটের নেতৃত্বে ছিলেন আলোচিত কৃষক রাকেশ তিকাইত। কৃষক নেতাদের সঙ্গে জেলা প্রশাসনের টানা বৈঠক ব্যর্থ হওয়ায় ফতেহাবাদে বিক্ষোভ অব্যাহত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন কৃষকেরা।


বিক্ষোভের কর্মসূচি হিসেবে বুধবার হরিয়ানায় বিজেপির মিত্র সংগঠন জননায়ক জনতা পার্টির (জেজেপি) বিধায়ক দেবেন্দ্র সিং বাবলির বাসভবন ঘেরাও করেন কৃষকেরা। ওই সময় বিকাশ সিসার ও রবি আজাদ নামে দুই কৃষককে গ্রেপ্তার করা হয়।


এর আগে ভারতের বিতর্কিত কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে আন্দোলনরত কৃষকদের নিয়ে বিধায়ক বাবলি কটূক্তি করেন বলে অভিযোগ ওঠে। সে সময় তার বিরুদ্ধে মামলা করার উদ্যোগ নেন ক্ষুব্ধ কৃষকেরা। পরে কৃষকদের নামে ‘অসংগত‘ কথা বলায় দুঃখপ্রকাশ করেন বাবলি।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি