কাঠের বাড়ি

যে কাঠের বাড়ি জন্ম দিচ্ছে প্রশ্নের

যে কাঠের বাড়ি জন্ম দিচ্ছে প্রশ্নের
সর্বমোট পঠিত : 11 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

কুষ্টিয়ার শিলাইদহে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কুঠিবাড়ির কাছে পাঁচতলা একটি কাঠের বাড়ি আলোচনার জন্ম দিয়েছে। এটির নাম রাখা হয়েছে ‘মন ভোলানো কাঠের বাড়ী’। নির্মাতা বলছেন, এটি বানানো হয়েছে মুসলমানদের প্রতিষ্ঠান হিসেবে। বিষয়টি স্থানীয় সংস্কৃতিজনদের মধ্যে প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে।

১৮৯১ সালে নদীয়া, পাবনা, রাজশাহী ও উড়িষ্যার জমিদারি তদারকি শুরু করেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। সেই সুবাদে কুষ্টিয়ার শিলাইদহের কুঠিবাড়িতে তিনি দীর্ঘ সময় অতিবাহিত করেন। তার অনেক উল্লেখযোগ্য সাহিত্য রচনা হয়েছে এই শিলাইদহে বসে।


কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার শিলাইদহে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ঐতিহ্যবাহী সেই কুঠিবাড়ির কাছেই বানানো হয়েছে কাঠের বাড়িটি। মাঝগ্রাম এলাকায় ১২ শতক জমির উপর ব্যক্তিমালিকানায় এটি বানানো। সম্পূর্ণ কাঠের তৈরি পাঁচতলা বাড়িটি ৩৫ ফুট উচ্চতার ।


বাড়িটি তৈরি করেছেন স্থানীয় কাঠ ব্যবসায়ী আব্দুর রশিদ জোয়ার্দার। মেঝে ও দেয়ালে রয়েছে নানা কারুকাজ আর রঙিন আল্পনা। নির্মাণকাজে ব্যবহার হয়েছে তাল, মেহগনি আর শাল কাঠ। বিশ্বকবির স্মৃতিবিজড়িত কুঠিবাড়ির কাছে হওয়ায় এখানে প্রতিদিনই ভিড় করছে পর্যটক।


বাড়িটির মালিক স্থানীয় আব্দুর রশিদ জোয়ার্দার বলেন, মুসলমানদের পারিবারিকভাবে পর্যটন বিনোদন দেয়ার জন্য তিনি ‘ইসলামী দৃষ্টিকোণ’ থেকে ২০১৯ সালে এটি নির্মাণ করেন। নির্মাণে ৫০ লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে। পৃষ্ঠপোষকতা পেলে ইসলামি পার্ক নির্মাণেরও পরিকল্পনা রয়েছে তার। এ ছাড়াও পাশে আরেকটি সাত থেকে আটতলা কাঠের বাড়ি নির্মাণেরও ইচ্ছা আছে তার।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি