সিলেট-৩ আসনে উপনির্বাচন

সিলেটে ভোট গ্রহণের তারিখ না দিলেও ঘরে বসে নেই প্রার্থীরা

আ-লীগ ও জা-পা প্রার্থী
সর্বমোট পঠিত : 77 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব বিজয় নিশ্চত করার জন্য নিজের ‘ভোটব্যাংক’ অক্ষত রেখে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর ভোটে ভাগ বসানোর চেষ্টা করছেন। একই পথ ধরে হাটছেন জাতীয় পার্টির আতিকুর রহমান আতিক। এমন কথা এখন ভোটারদের মুখে মুখে।

 করোনার কারণে স্থগিত হয়ে যাওয়া জাতীয় সংসদের সিলেট-৩ আসনে উপনির্বাচনের নতুন করে ভোট গ্রহণের তারিখ ঘোষণা করেনি বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন। তবে নির্বাচন কমিশনসূত্রে জানাগেছে ৭ সেপ্টেম্বরের মধ্যে নির্বাচন করার সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এ হিসেব মাথায় রেখেই প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থীরা ঘরে বসে না থেকে নিজ নিজ কৌশলে ভোট চেয়ে বেড়াচ্ছেন। প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন প্রার্থীরা নানা কৌশলে।


আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব বিজয় নিশ্চত করার জন্য নিজের ‘ভোটব্যাংক’ অক্ষত রেখে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর ভোটে ভাগ বসানোর চেষ্টা করছেন। একই পথ ধরে হাটছেন জাতীয় পার্টির আতিকুর রহমান আতিক। এমন কথা এখন ভোটারদের মুখে মুখে।  

অপরদিকে সাবেক সংসদ সদস্য (এমপি) শফি আহমেদ চৌধুরীর একটি ব্যক্তি ইমেজ রয়েছে। আর তা কাজে লাগিয়ে তিনি নির্বাচনী বৈতরণী পার হতে চাচ্ছেন। শুধু ব্যক্তি ইমেজের ভোটে তার নির্বচনী বৈতরনী পার হওয়া নিয়েও সংশয় রয়েছে অনেকের মধ্যেই।

বাংলাদেশ কংগ্রেসের মনোনীত প্রার্থী জুনায়েদ মোহাম্মদ মিয়া তেমন আলোচনায় নেই ভোটারদের মাঝে।

এর আগে নির্বািচন কমিশনের দেয়া তফসিল অনুযায়ী গত ২৮ জুলাই সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনের ভোট গ্রহন করার কথা ছিল।
কিন্তু কঠোর লকডাউনের মধ্যে নির্বাচন না করতে ২৬ জুলাই উচ্চ আদালতে আবেদন করেন সুপ্রিম কোর্টের ছয় আইনজীবী ও নির্বাচনী এলাকার সাত ভোটার। শুনানি শেষে আদালত ৫ আগস্ট পর্যন্ত ভোট গ্রহণ স্থগিত করে।


মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি