আল্ল্হ শুধু গরিবরেই মারে

আল্ল্হ শুধু গরিবরেই মারে
সর্বমোট পঠিত : 7 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

মহাখালীর সাততলা বস্তিতে ভয়াবহ আগুনে প্রায় সব হারিয়েছেন কয়েক শ পরিবার। দিন আনে দিনে খায় গোছের মানুষগুলোর ঠাঁই এখন আকাশের নিচে। নির্মম আগুনে নির্বাক তারা। সাততলা বস্তিতে সোমবার ভোররাতে আগুনে পুড়ে গেছে কয়েক শ ঘর। আগুন নেভার সঙ্গে সঙ্গে আবার জীবনযুদ্ধে নেমেছেন ক্ষতিগ্রস্তরা।

বস্তিটিতে গিয়ে দেখা যায়, পুরো বস্তির অর্ধেক অংশ পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। বাকি অর্ধেকে আগুনের ছোঁয়া লাগেনি। ফায়ার সার্ভিস থেকে বলা হয়েছে, প্রায় ২ হাজার ঘর আছে এই সাততলা বস্তিতে, যার অর্ধেকই পুড়ে ছাই।


বস্তিবাসীরা জানান, ভোররাতে আগুনের সূত্রপাত হয় বস্তির মাঝখানের একটি ঘরে। ভেবেছিলেন নিজেরাই নিভিয়ে ফেলবেন সে আগুন। তাই যে যার মতো ছুটে গিয়েছিলেন সেই ঘরের দিকে। কিন্তু হঠাৎ শুরু হলো দখিনা বাতাস, আগুনের মুখ ছুটে গেল উত্তর দিকে। এক ঘর দুই ঘর করে আগুন ছড়াল বস্তির উত্তর দিকের সব ঘরে।


পোড়া বস্তিতে ঢুকেই চোখে পড়ল এক বৃদ্ধ দম্পতিকে। তাদের মালামালের সবই পুড়ে ছাই। আধপোড়া কিছু চাল কুড়াতে ব্যস্ত তারা।


কাছে যেতেই জুলেখা বেগম বলে উঠলেন, ‘আল্লায় খালি গরিবরেই মারে বাজান। আমাগো সব শেষ। এই ঘরে তিন হাজার টাহা ভাড়া দিয়া মাসে থাকতাম আমরা বুড়া-বুড়ি। আমি মাইনসের বাড়িত কাম করতাম আর হেয় (তার স্বামী) ঘুইরা ঘুইরা সাহায্য আনত। কয় মাস দইরা বেরেক (ব্র্যাক এনজিও) আর সরকারের দেয়া ১০ কেজি চাইল, কয়ডা সাবান, আর ১০ কেজি তেল জমাইছিলাম। সব গেছেগা।’

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি