আমানকে জুস-খাবার পাঠালেন প্রধানমন্ত্রী

সর্বমোট পঠিত : 312 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

রাজধানীর গাবতলীতে অবস্থান কর্মসূচি থেকে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমানউল্লাহ আমানসহ বেশ কয়েকজন নাতা-কর্মীকেকে আটক করেছে পুলিশ। এ সময় অসুস্থ হয়ে পড়লে আমানকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।


রাজধানীর গাবতলীতে অবস্থান কর্মসূচি থেকে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমানউল্লাহ আমানসহ বেশ কয়েকজন নাতা-কর্মীকেকে আটক করেছে পুলিশ। এ সময় অসুস্থ হয়ে পড়লে আমানকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

শনিবার (২৯ জুলাই) দুপুর ২টা ১০ মিনিটের দিকে অসুস্থ আমানকে দেখতে প্রধানমন্ত্রীর একটি প্রতিনিধি দল জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটে গিয়েছেন। তারা বিএনপি নেতাকে প্রধানমন্ত্রীর পাঠানো দুপুরের খাবার, বিভিন্ন প্রকার মৌসুমী ফল ও জুসের বুকেট তুলে দিয়েছেন।

প্রতিনিধি দলটির নেতৃত্ব দেন প্রধানমন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব (রাজনীতি) গাজী হাফিজুর রহমান লিকু। সাক্ষাৎ শেষে তিনি জানান, আমানউল্লাহ আমানকে উন্নত চিকিৎসা প্রদান করতে প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পরে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের প্রেস উইং থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে তার সহকারী একান্ত সচিব-২ গাজী হাফিজুর রহমান (লিকু) জাতীয় হৃদরোগ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপি নেতা আমানউল্লাহ আমানকে দেখতে যান। এ সময় বিএনপি নেতাকে প্রধানমন্ত্রীর পাঠানো দুপুরের খাবার, বিভিন্ন প্রকার মৌসুমী ফল ও জুসের বুকেট তুলে দেন তিনি।

গাজী হাফিজুর রহমান আমানউল্লাহ আমানকে জানান, প্রধানমন্ত্রী আপনার জন্য এ সকল খাবার, ফল ও জুস পাঠিয়েছেন এবং আপনার স্বাস্থ্যের খোঁজ-খবর জানতে চেয়েছেন। তিনি আপনার দ্রুত সুস্থতা কামনা করেছেন। চিকিৎসার জন্য দেশের ভেতরে অন্য যে কোনো হাসপাতালে যেতে চাইলে তারও ব্যবস্থা করে দেবেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রেস রিলিজে আরও বলা হয়েছে, আমানউল্লাহ আমান প্রধানমন্ত্রীর এসকল উপহার গ্রহণ করেন এবং মানবতা ও রাজনৈতিক শিষ্টাচারের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান।

এর আগে, বেলা ১১টার দিকে খালেক পরিবহনের বাস কাউন্টারের সামনে আমানউল্লাহ আমানের নেতৃত্বে বিএনপির নেতা-কর্মীরা সড়কের একপাশে অবস্থান নেন। নিকট দূরত্বেই অবস্থান নেন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। এ সময় বিএনপির অন্তত পাঁচজন নেতা-কর্মীকে ধরে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন আওয়ামী লীগের কর্মীরা। বিষয়টি নিয়ে পুলিশের সঙ্গে কথা বলতে যান আমানউল্লাহ আমান।

এক পর্যায়ে পুলিশ সদস্যরা আমানকে গাড়িতে তোলার চেষ্টা করে। ধাক্কা দিয়ে আমানউল্লাহ আমানসহ নেতা-কর্মীদের সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে মাজার রোডের নাবিল পরিবহনের সামনের সড়কে আমানউল্লাহ আমান শুয়ে পড়েন। পরে পুলিশ সেখান থেকে তাকে ভ্যানে তুলে নেয়।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি