এলপিজির দাম আরও কমলো

সর্বমোট পঠিত : 168 বার
জুম ইন জুম আউট পরে পড়ুন প্রিন্ট

ঈদের পর তরলীকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাসের (এলপিজি) দাম কমলো। জুলাই মাসে ভোক্তা পর্যায়ে ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম ৭৫ টাকা কমিয়ে ৯৯৯ টাকা নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। যা এতদিন ১ হাজার ৭৪ টাকা বিক্রি হয়ে আসছিল।


ঈদের পর তরলীকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাসের (এলপিজি) দাম কমলো। জুলাই মাসে ভোক্তা পর্যায়ে ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম ৭৫ টাকা কমিয়ে ৯৯৯ টাকা নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। যা এতদিন ১ হাজার ৭৪ টাকা বিক্রি হয়ে আসছিল।

সোমবার (৩ জুলাই) দুপুরে বিইআরসি কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাম ঘোষণা করা হয়।

এদিকে সাড়ে ১২ কেজির সিলেন্ডারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১ হাজার ৪০ টাকা, ১৫ কেজির সিলেন্ডারের ১ হাজার ২৪৮ টাকা, ১৬ কেজির সিলেন্ডার ১ হাজার ৩৩১ টাকা, ১৮ কেজির সিলেন্ডার ১ হাজার ৪৯৮ টাকা, ২০ কেজির সিলেন্ডার ১ হাজার ৬৬৪ টাকা, ২২ কেজির সিলেন্ডার ১ হাজার ৮৩১ টাকা এবং ২৫ কেজির সিলেন্ডারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ২ হাজার ৮০ টাকা।

সোমবার (৩ জুন) দুপুরে বিইআরসি কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ দাম ঘোষণা করা হয়। এতে বলা হয়, সৌদি সিপি অনুযায়ী জুলাই মাসের জন্য ভোক্তা পর্যায়ে বেসরকারি এলপিজি ও অটোগ্যাসের মূল্য সমন্বয় করা হয়েছে। সৌদির আরামকো কর্তৃক প্রোপেন এবং বিউটেনের ঘোষিত সৌদি সিপি প্রতি মেট্রিক টন যথাক্রে ৪০০.০০ মার্কিন ডলার এবং ৩৭৫.০০ মার্কিন ডলার। প্রোপেন ও বিউটেনের অনুপাত ৩৫:৬৫ অনুযায়ী প্রোপেন ও বিউটেনে গড় সৌদি সিপি প্রতি মেট্রিক টন ৩৮৩.৭৫ মার্কিন ডলার বিবেচনায় জুলাই মাসের জন্য এলপিজি ভোক্তা পর্যায়ের মূল্য সমন্বয় করা হলো। সমন্বয়কৃত মূল্য আজ সন্ধ্যা ৬টা থেকে প্রযোজ্য ও কার্যকর হবে এবং পরবর্তী আদেশ না দেওয়া পর্যন্ত তা বলবৎ থাকবে।

এর আগে জুন মাসে ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম ১৫৯ টাকা কমিয়ে ১ হাজার ৭৪ টাকা নির্ধারণ করা হয়। তারও আগে মে মাসে প্রতি ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম ৫৭ টাকা বাড়িয়ে ১ হাজার ২৩৫ টাকা নির্ধারণ করে (বিইআরসি)। এপ্রিলে ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম ২৪৪ টাকা কমিয়ে ১ হাজার ১৭৮ টাকা নির্ধারণ করা হয়।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালের ১২ এপ্রিলের আগ পর্যন্ত এলপিজির দর ছিল কোম্পানিগুলোর ইচ্ছাধীন। তবে ১২ এপ্রিল প্রথমবারের মতো দর ঘোষণা করে বিইআরসি। তখন বলা হয়, আমদানিনির্ভর এই জ্বালানির দাম নির্ধারণে সৌদি রাষ্ট্রীয় কোম্পানি আরামকো ঘোষিত দরকে ভিত্তি হিসেবে ধরা হবে। ফলে সৌদির দর ওঠানামা করলে ভিত্তিমূল্যও ওঠানামা করবে। তবে এ ক্ষেত্রে অন্যান্য কমিশন অপরিবর্তিত থাকবে। সেই ঘোষণার পর থেকে প্রতি মাসে এলপিজির দর ঘোষণা করে আসছে বিইআরসি।

মন্তব্য

আরও দেখুন

নতুন যুগ টিভি