ওয়ালটন ওয়ালপ্যাড প্রো বাজারে

ঢাকা অফিস :
ওয়ালটন এবার বাজারে আনলো উইন্ডোজ চালিত মাল্টি ফাংশনাল এক্সপার্ট ট্যাব ’ওয়ালপ্যাড প্রো’। লেটেস্ট উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম ৮.১ চালিত এবং আপকামিং উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেম আপডেট সুবিধা সম্বলিত এই ট্যাবের স্ক্রিন ৮.৯ ইঞ্চি। ক্রেতারা আগামী কাল সোমবার থেকেই বাজারে পাবেন এই ট্যাব। অগ্রসর ব্যবহারকারীদের জন্য এটি এসেছে প্রযুক্তি পন্যের নতুন চমক হিসেবে।

ওয়ালটনের প্রকৌশলীরা জানান, প্রযুক্তি এখন খুব দ্রুত বদলে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় আধুনিক ক্রেতাদের চাহিদা পূরণে উইন্ডোজ ৮.১ চালিত এই ট্যাব আনলো ওয়ালটন। এর হার্ডওয়্যারে ব্যবহার করা হয়েছে উচ্চগতির ইন্টেল ১.৩ গিগাহার্টজ ৩৭৩৫ কোয়াডকোর প্রসেসর। আছে ২ জিবি ডিডিআর ৩ র‌্যাম এবং ইন্টেল এইচডি গ্রাফিক্স প্রসেসর। ডটঢএঅ রেজ্যুলেশনের ওয়ালপ্যাড প্রো‘ তে ব্যবহার করা হয়েছে আইপিএস টেকনোলজি। প্রটেক্টর হিসেবে থাকছে করনিং গরিলা গ্লাস।
নিখুঁত ছবি এবং দ্রত গতির ভিডিও রেন্ডারের কারণে গেমারদের প্রিয় অনুষঙ্গ হবে এটি। পিসি ব্যবহারকারীদের জন্য এই প্যাড হবে খুবই সহায়ক। এর ডিভাইসের সঙ্গে পিসি ডিভাইসের সাদৃশ্য রয়েছে। উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের প্রায় সব সফটওয়্যারই ওয়ালপ্যাড প্রো‘তে সাপোর্ট করবে।
ওয়ালটনের গবেষণা ও উন্নয়ন (সফটওয়্যার) বিভাগের প্রকৌশলী আরিফুল হক রায়হান বলেন, মাল্টিমিডিয়া ব্যবহারকারীদের জন্যও এটি অনন্য। ওয়ালটনের এই ওয়ালপ্যাডে ইন্টেল এসডি অডিও সিস্টেম থাকার ফলে সাউন্ড ইফেক্ট পাওয়া যাবে নিখুঁত ও চমতকার। ডুয়েল স্টেরিও স্পিকারের সাহায্যে পাওয়া যাবে সত্যিকার বিনোদনের আমেজ।
ওয়ালটনের ওয়ালপ্যাড প্রো‘তে রয়েছে মাইক্রোচিপ প্রযুক্তি সম্বলিত ৬৪ জিবির বিশাল ডাটা স্টোরেজ স্পেস। যা গতানুগতিক ম্যাগনেটিক হার্ডডিস্কের তুলনায় অর্ধেক সময়ে অ্যাপলিকেশন রান করতে সক্ষম। সেইসঙ্গে এক্সটারনাল স্টোরেজ হিসেবে ব্যবহার করা যাবে ১২৮ জিবি পর্যন্ত মাইক্রো এসডি কার্ড। রয়েছে ৫ মেগা পিক্সেলের ব্যাক এবং ২ মেগা পিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা। ভিডিও কল, ভিডিও চ্যাট এবং তা থেকে ছবি সংগ্রহের সুবিধাতো থাকছেই।
ওয়ালপ্যাড প্রো মাইক্রোসফট ঘরানার ট্যাব বলে এতে থাকছে আরো কিছু বিশেষ সুবিধা। ব্যবহারকারী পাবেন এক বছরের ফ্রি অফিস ৩৬৫ সুইট। যাতে সহজেই মাইক্রোসফট ওয়ার্ড, এক্সেল ও পাওয়ার পয়েন্টসহ বিভিন্ন অফিস সফটওয়্যার এবং ক্লাউড শেয়ারিং সুবিধা মিলবে। এছাড়া মাইক্রোসফট ওয়ান ড্রাইভে পাওয়া যাবে ১ টিবি স্টোরেজ। যেখানে ক্লাউড কম্পিউটিং এর পূর্ন সুবিধা রয়েছে। গুরুত্বপূর্ন ফাইল স্টোর করার পাশাপাশি সরাসরি পিসি বা ল্যাপটপ থেকেও কনটেন্ট শেয়ার করা যাবে।
কানেকটিভিটির ক্ষেত্রে ওয়ালপ্যাড প্রো দুর্দান্ত। এক কথায় এটি দেবে অলরাউন্ড পারফরমেন্স। আছে দ্রুতগতির ওয়াইফাই এবং ব্লুটুথ কানেটিভিটি। থাকছে ইউএসবি ২.০ এবং মাইক্রো এইচডিএমআই পোর্ট। ওটিজি‘র সুবিধা থাকায় যে কোনো ইউএসবি পেরিফেরাল এবং ডিভাইস খুব সহজেই এর সঙ্গে যুক্ত করা সম্ভব। সেন্সর হিসেবে রয়েছে এক্সেলেরোমিটার ৩ থ্রিডি এবং সমন্বিত (ইন্টিগ্রেটেড) জিপিএস সিস্টেম। এক্সটারনাল পাওয়ার দিয়ে পোর্টেবল এইচডিডি ড্রাইভ ব্যবহার এবং অপটিক্যাল ড্রাইভ ও ইউএসবি ইথারনেট ব্যবহার সম্ভব। যুক্ত করা যাবে যেকোনো ইউএসবি মডেম।
ডাটা ব্যবহারের জন্য ওয়ালপ্যাড প্রো‘তে আছে থ্রিজি সিমযুক্ত করার স্লট। এটি দিয়ে মোবাইল ইন্টারনেট ব্রাউজিংসহ ইন্টারনেটের যাবতীয় কাজ করা সম্ভব। মাইক্রোসফটের উইন্ডোজ আপগ্রেড সুবিধা থাকায় ফ্রি প্যাচ আপটেড পাওয়া যাবে সব সময়। ব্যবহারকারী আপ টু ডেট থাকতে পারবেন সার্বক্ষনিক। এর বিশেষ টাইপ কভার দেবে কি বোর্ড সুবিধা। সেইসঙ্গে তা বাইরের চাপ, দাগ এবং ময়লা থেকে ট্যাবটিকে রক্ষা করবে। ব্লুটুথ থাকায় টাইপকভার দিয়ে ট্যাবটিকে ল্যাপটপ হিসেবে ব্যবহার করা যাবে।
এটি মাইক্রোসফট অ্যাপস স্টোরের সঙ্গে যুক্ত থাকায় উইন্ডোজ ঘরানার সব অ্যাপস সহজেই ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে। এসব সুবিধা দীর্ঘ সময় উপভোগের জন্য ওয়ালপ্যাড প্রো‘তে যুক্ত হয়েছে ৬০০০ মিলি এ্যাম্পিয়ার লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি। প্যাডটির ওজন মাত্র ৪৬০ গ্রাম। এর দৈর্ঘ ২৩২.৮ মিলিমিটার, চওড়া ১৪৯.৫ মিলিমিটার এবং পুরুত্ব মাত্র ৮.৫ মিলিমিটার।
ওয়ালপ্যাড প্রো‘র দাম মাত্র ১৯,৯৯০ টাকা। ওয়ালটনের এই প্যাডের মাধ্যমে দেশের ইলেকট্রনিক্স তথা প্রযুক্তি পণ্যের বাজারে আরেকটি বিপ্লব ঘটতে যাচ্ছে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।
ওয়ালটনের অপারেটিভ ডিরেক্টর উদয় হাকিম বলেন, উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম চালিত এই ট্যাবকে বলা চলে লেটেস্ট প্রযুক্তি পণ্য। আধুনিক বিশ্বে এটি একটি নতুন সংযোজন। খুব দ্রুত এটি জনপ্রিয় হচ্ছে। ওয়ালটন সব সময়ই প্রযুক্তির নতুন চ্যালেঞ্জ গ্রহণে প্রস্তুত। আর তাই বাংলাদেশের প্রযুক্তিপ্রেমীদের জন্য বাজাওে এলো ওয়ালপ্যাড প্রো। তার প্রত্যাশা, এই প্যাড থেকে ইউজাররা আশাতীত সাড়া পাবেন। (ইন্টারনেট)

Top
ঘোষনাঃ