ডেম্বেলে ম্যাজিকে বেঁচে গেলো বার্সেলোনা


স্পোর্টস ডেস্ক:
শেষ মুহূর্তের ফ্রেঞ্চ ম্যাজিকে জিতে গেলো বার্সেলোনা। রিয়াল ভায়াদোলিদকে হারালো ১-০ গোলে। দলের হয়ে একমাত্র গোলটি করেন ওসমান ডেম্বেলে। এ জয়ে টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে উঠে এলো কাতালান ক্লাবটি।

ন্যু ক্যাম্পে বার্সেলোনা। প্রতিপক্ষ রিয়াল ভায়াদোলিদ। পয়েন্ট টেবিলে ব্যবধানটা পরিষ্কার। কিন্তু, মাঠের খেলায় ধুসর কাতালানরা। তবে, ম্যাচের আগে মেসির হাতে তুলে দেয়া বিশেষ স্মারকটাই এদিন বুস্টআপ কোম্যান বাহিনীর জন্য।

সাম্প্রতিক ফর্ম চিন্তার কারণ হলেও, ভায়াদোলিদকে নিয়ে দুশ্চিন্তা ছিলো না বার্সা শিবিরে। কারণটা হয়তো, ইনজুরিমুক্ত পরিপূর্ণ স্কোয়াডের হাতছানি। মেসি গ্রিজম্যানকে দু’পাশে রেখে ফরোয়ার্ড লাইনে নাম্বার নাইনের দায়িত্ব পান ওসমান ডেম্বেলে। কোম্যানের কৌশলে ৩-৪-২-১-এ আলবা-পেদ্রিরা।

তবে, ম্যাচ শুরু হতেই ভোজবাজির মতো বদলে গেলো পরিস্থিতি। আক্রমণ আর পাল্টা আক্রমণে তটস্থ হয়ে পড়ে স্বাগতিকরা। অতিথিদের আক্রমণাত্মক ফুটবলে, দিশেহারা বার্সা হারিয়ে ফেলে মাঝ মাঠের দখল। ফলাফল, বার বার পরীক্ষা দিতে হয় স্টেগেনকে।

২৩ মিনিটে দুরন্ত এক আক্রমণ করে ভায়াদোলিদ। ক্রস থেকে পাওয়া বলে হেড করতে না পারলেও, বক্সের বাইরে থেকে শটটা কাঁপিয়ে দেয় কাতালুনিয়ানদের। হতাশ কোম্যান তখন হতবিহ্বল বসে ডাগ আউটে। টিভি ক্যামেরায় ধরা পড়ে তার আর্তনাদগুলো। তবে, সেখানেই শেষ হয় অতিথিদের জারিজুরি। ২৭ মিনিটে পালটা আক্রমণে উঠে বার্সেলোনা। কিন্তু, মেসি আর ডেম্বেলে যেন পণ করে নেমেছিলেন, আজ গোল করবেনই না। তাই তো বেঁচে যায় সার্জিও শিষ্যরা।

প্রথমার্ধের শেষ দিকে ভায়াদোলিদের পোস্ট কাঁপিয়ে দেন পেদ্রি। জর্ডি মাসিপকে ধোঁকা দিতে পারলেও, তার গ্লাভস দুটোকে ফাঁকি দিতে পারেননি তিনি। নিষ্ফলাই কাটে প্রথম ৪৫ মিনিট।

ফিরে এসে আবারো ঝলক দেখায় অতিথি দল। তবে, স্টেগেনকে বোকা বানালেও, ফরোয়ার্ডের ব্যর্থতায় জালে বল যায়নি বার্সেলোনার। পরের মিনিটে অবশ্য সে দুঃখ ভুলে যায় ভায়াদোলিদ। বার্সার দুই ফ্রেঞ্চ ম্যানের অগোছালো ফুটবল অবাক করে সবাইকে। গোলরক্ষককে একা পেয়েও গায়ে মারেন ডেম্বেলে। আর রিবাউন্ড হেডে বলটাকে নিশানায় রাখতে পারেননি গ্রিজম্যান।

এরপর মাঠজুড়ে চলে বল দখলের লড়াই। একক আধিপত্য ধরে রাখতে পারেনি কেউই।

ম্যাচ তখন শেষ হবে হবে, ঘড়ির কাঁটায় ৯০ মিনিট। এ অবস্থায় শেষবারের মতো আক্রমণে উঠে বার্সেলোনা। ত্রাতা হয়ে সামনে আসেন সেই ডেম্বেলে। জালে বল জড়ায় ভায়াদোলিদের। আনন্দে ফেটে পড়ে বার্সা শিবির। স্বস্তির জয়ে শেষ হয় দুর্দান্ত এক ম্যাচ।

Top
ঘোষনাঃ