বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদের মেসে বাস শ্রমিকদের হামলা, আহত ১১


নিউজ ডেস্ক:
মধ্যরাতে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মেসে বাস শ্রমিকদের হামলায় ১১ ছাত্র আহত হয়েছেন। তাদের বরিশাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে টিকিট কাটতে গিয়ে কথা কাটাকাটির জেরেও দুই শিক্ষার্থীর ওপর হামলার ঘটনা ঘটে।

আহত শিক্ষার্থীরা হলেন, মৃত্তিকা ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের নুরুল্লাহ সিদ্দিকী, রসায়ন বিভাগের এস এম সোহানুর রহমান, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের আহসানুজ্জামান, গণিত বিভাগের ফজলুল হক রাজীব,সমাজবিজ্ঞান বিভাগের আলীম সালেহী, বোটানি ও ক্রপ সাইন্সের আলী হাসান, বাংলা বিভাগের মোঃ রাজন হোসেন এবং মার্কেটিং বিভাগের মাহবুবুর রহমান, মাহাদী হাসান ইমন,মিরাজ হাওলাদার ও সজীব শেখ।

এ ঘটনারপ্রতিবাদে গতকালের সড়ক অবরোধ ও বিআরটিসি বাস কাউন্টারে হামলার জেরে শ্রমিকেরা পাল্টা হামলা করে। ঘটনার প্রতিবাদে রাতেই বরিশাল-কুয়াকাটা মহাসড়কের বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে আগুন জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থীরা। সকালে থেকে ফের আন্দোলনে নেমেছে তারা।

শিক্ষার্থীরা জানায়, বুধবার রাত ১টায় রূপাতলী হাউজিংয়ে আন্দোলনে নেতৃত্ব দেয়া মাহমুদুল হাসান তমালের মেসে আক্রমণ করে পরিবহণ শ্রমিকেরা। ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে তমালকে উদ্ধারে এগিয়ে আসেন পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন মেসের শিক্ষার্থীরা। তখন ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসোঁটা দিয়ে দফায় দফায় শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালানো হয়।

আহতরা শেরে বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থার দাবি জানিয়েছেন তারা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. সুব্রত কুমার দাস জানান, রাতে সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে। পরবর্তীতে আহত সকল শিক্ষার্থীর চিকিৎসা ব্যবস্থা করা হয়।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার দুপুরে নগরীর রূপাতলী এলাকায় বিআরটিসি বাস কাউন্টারের স্টাফ কর্তৃক বিশ্ববিদ্যালয়ের দুজন শিক্ষার্থীকে লাঞ্ছিতর ঘটনা ঘটে। দুপুর দেড়টা থেকে প্রায় দু’ঘন্টা সেখানকার বাস টার্মিনালে অবরোধ করেন শিক্ষার্থীরা। পরবর্তীতে বিআরটিসির রফিক নামের অভিযুক্ত স্টাফকে পুলিশ গ্রেপ্তার করলে অবরোধ তুলে নেয় তারা।

Top
ঘোষনাঃ