ধর্মীয় উপসনালয়ে মাস্ক ব্যবহারে সচেতন করাসহ মাস্ক বিতরণ নকলায়


নাহিদুল ইসলাম রিজন:
শেরপুর জেলার নকলা উপজেলায় মসজিদসহ সকল ধর্মীয় উপাসনালয়ে সকলকে মাস্ক ব্যবহার করার জন্য সচেতন করাসহ মাস্ক বিতরণ করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) জাহিদুর রহমান।

১৩ নভেম্বর শুক্রবার উপজেলা পরিষদ মসজিদে জুমার নামাজের খুদবা শুরুর আগে তিনি সকল মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে সচেতনতা মূলক বক্তব্য রাখেন। তাছাড়া যে সকল মুসল্লিরা মাস্ক ছাড়া মসজিদে জুমার নামাজ পড়তে এসেছিলেন তাদের মাঝে বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ করেন তিনি।

মসজিদ, মন্দির, গীর্জা ও পেগুডাসহ সকল ধর্মীয় উপাসনালয়ে প্রার্থনা করতে আসা ধর্মপ্রাণদের মাস্ক ব্যবহার করার জন্য তিনি সকলকে সচেতন করেন। তাঁর নিজের সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস (কোভিট-১৯) এর দ্বিতীয় ঢেউয়ের ভয়াবহতা সম্পর্কে সকলকে অবহিত করেন তিনি। কোভিট-১৯ এর দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় সকলকে মাস্ক পিরধান ও স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে ব্যাপক প্রচারণা ও তিনি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের জারি করা ৩ নভেম্বরের প্রজ্ঞাপন ও কোভিট-১৯ এর দ্বিতীয় ঢেউয়ের বিস্তার মোকাবেলায় মাস্ক পরিধান নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের জারি করা বিজ্ঞপ্তি সম্পর্কে সকলকে অবহিত করেন। জুমার নামাজ শেষে সকল মুসল্লিদের নিয়ে কোভিট-১৯ এর ভয়াবহতার হাত থেকে সকলকে সুরক্ষা রাখতে মহান আল্লাহর দরবারে বিশেষ মোনাজাত করেন পেশ ইমাম মুফতি আব্দুল জলিল কাসেমী।

সরকারের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ও ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক জারি করা প্রজ্ঞাপনের আলোকে ইউএনও জাহিদুর রহমান এরই মধ্যে সর্ববৃহৎ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে “উপজেলা প্রশাসন নকলা, শেরপুর” এর টাইম লাইনে কোভিট-১৯ এর দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় সকলকে মাস্ক পিরধান ও স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন করার জন্য সকলের উদ্দেশ্যে স্ট্যাটাস দেন।

Top
ঘোষনাঃ