শ্রমিক লীগ নেতার কব্জি কেটে দিল ওরা, গ্রেপ্তার -২

নিউজ ডেস্ক:
পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলা শ্রমিকলীগের সহ-সভাপতি জুয়েল প্যাদার উপর সন্ত্রাসী হামলা ও কুপিয়ে বাম হাতের কব্জি কর্তণের ঘটনায় দেশীয় অস্ত্রসহ দুই সন্ত্রাসীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার আমতলী সীমান্তবর্তী উত্তর টিয়াখালী থেকে পালিয়ে যাওয়ার সময় আমতলী থানা পুলিশের সহায়তায় বশির চৌকিদার ও সোহেল হাওলাদারকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে।

কলাপাড়া থানার ওসি(তদন্ত) মো. আসাদুর রহমান জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে জুয়েলের উপর এ হামলার ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঘটনার সাথে জড়িত ওই দুইজনকে গ্রেপ্তার করে। এসময় তাদের কাছ থেকে একটি ছেনা ও গরু জবাইয়ের একটি ছুড়ি জব্দ করা হয়। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

বুধবার (০৪ নভেম্বর) রাত আটটার দিকে কলাপাড়া পৌর শহর থেকে দলীয় কার্যক্রম শেষে বাসায় ফেরার পথে উপজেলার টিয়াখালী ইউনিয়নের রজপাড়া এলাকায় সশস্ত্র একদল দূবৃত্ত জুয়েলের উপর হামলা চালায়। তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে দুই পা, দুই হাত জখমের পর বাম হাতের কব্জি কেটে নেয় সশস্ত্র দূবৃত্তরা। তাৎক্ষণিক তাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে কলাপাড়া হাসপাতালে ভর্তি করে। কিন্তু প্রচন্ড রক্তক্ষরণে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে রাতেই তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে কলাপাড়ায় শ্রমিক লীগ নেতা জুয়েলের উপর হামলার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় উপজেলা শ্রমিক লীগের আয়োজনে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা শ্রমিক লীগ সভাপতি হীরা হাওলাদার স্বপন। হামলায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন সিনিয়র সহ-সভাপতি মো: জাকির হোসেন, গাজী মশিউর রহমান মামুন গাজী, নীলগঞ্জ ইউনিয়ন সভাপতি মুহ: শাহরুল ইসলাম লিটন, টিয়াখালী ইউনিয়ন সভাপতি মো: রিয়াজ আকন, সহসভাপতি মো: আবুল কালাম মৃধা, মিঠাগঞ্জ ইউনিয়ন সাধারন সম্পাদক মো: বাদশা হাওলাদার, লালুয়া ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক শাহাবুদ্দিন গাজী প্রমূখ। বক্তারা শ্রমিক লীগ নেতার উপর হামলা কারীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী জানান।

Top
ঘোষনাঃ