সিলেট এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে ধর্ষণ, ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা


সিলেট সংবাদদাতা:

সিলেট এমসি কলেজ ছাত্রবাসে স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগে ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে ভুক্তভোগীর পরিবার।

২৬ সেপ্টেম্বর শনিবার সকালে সিলেটের শাহপরান থানায় ৬ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ৩ জনকে আসামি করে মামলাটি করেন ভুক্তভোগী তরুণীর স্বামী।

মামলার ছয় আসামিরা হলেন- এম সাইফুর রহমান, মাহবুবুর রহমান রনি, তারেক, অর্জুন লঙ্কর, রবিউল ইসলাম ও মাহফুজুর রহমান। এ ছয় জনের মধ্যে চারজনই ওই কলেজের শিক্ষার্থী।

এদিকে, এ ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গছে অভিযুক্তদের ছবি। এখন পর্যন্ত ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত কাউকে আটক করা যায়নি। তবে তাদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এদিকে, এ ঘটনায় মধ্যরাতে ছাত্রাবাসে অভিযান চালিয়েছে পুলিশ। এসময় ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা সাইফুর রহমানের কক্ষ থেকে আগ্নেয়াস্ত্রসহ কয়েকটি ধারালো অস্ত্রও উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত অস্ত্রের মধ্যে একটি পাইপগান, চারটি রামদা এবং দু’টি লোহার পাইপ রয়েছে।

জানা গেছে, ২৫ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সন্ধ্যায় স্বামী-স্ত্রী এমসি কলেজে বেড়াতে যান। এ সময় কলেজ ক্যাম্পাস থেকে ৫-৬ জন জোরপূর্বক কলেজের ছাত্রাবাসে নিয়ে যায় দম্পতিকে। সেখানে একটি কক্ষে স্বামীকে আটকে রেখে ১৯ বছরের গৃহবধূকে গণধর্ষণ করে তারা।

খবর পেয়ে গৃহবধূকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে শাহপরাণ থানা পুলিশ। বর্তমানে ওই গৃহবধূ হাসপাতালের ওসিসিতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

Top
ঘোষনাঃ